চরফ্যাশনে বেড়ি বাঁধের ঢাল কেটে পাকা ভবন নির্মাণ

চরফ্যাশনে বেড়ি বাঁধের ঢাল কেটে পাকা ভবন নির্মাণ

0

নিজস্ব প্রতিবেদক, নগরকন্ঠ.কম ১৫ মার্চ : চরফ্যাশনের চরমাদ্রাজ ইউনিয়নের হামিদপুর গ্রামের নতুন স্লুইস বাজার সংলগ্ন পানি উন্নয়ন বোর্ডের আওতাধীন বেড়ি বাঁধের ঢাল কেটে অবৈধ ভাবে পাকা ঘর নির্মাণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। বাঁধের সরকারি জায়গা বিক্রি করা হচ্ছে মৌখিক চুক্তিতে অথবা উভয় পক্ষের মৌখিক সম্মতিতে। পজেশন বিক্রি এবং কেনার মধ্যে নেই কোনো দলিল দস্তাবেজ।

সরেজমিনে স্থানীয় ছানাউল্লাহ দেওয়ান, রুবেল তালুকদার ও মনোয়ার জমাদার বেড়িবাঁধের ঢাল কেটে ইট দিয়ে পাকা দোকান ঘর নির্মাণ করতে দেখা গেছে।

দোকানঘর নির্মাণকারী রুবেল তালুকদার এবং মনোয়ার জমাদার জানান, তারা স্থানীয় গফুর হাওলাদারের ছেলে নুরনবী মুন্সির নিকট থেকে দোকান ঘর নির্মাণের জন্য বেড়িবাঁধের ঢালে দৈর্ঘ্য ১৫ হাত এবং প্রস্ত ১০ হাত প্রতিটি পজেশন ১৭ হাজার টাকা দরে কিনেছেন।

নুরনবী মুন্সি রুবেল তালুকদার এবং মনোয়ার জমাদারের নিকট বেড়িবাঁধের ঢাল বিক্রির কথা স্বীকার করেছেন। ঢালের সরকারি জায়গা কি মূলে বিক্রি এবং কেনা হলো এমন প্রশ্নে কোনো পক্ষই মন্তব্য করেন নাই।

দোকান ঘর নির্মাণকারী ছানাউল্লাহ দেওয়ান জানান, তিনি আশ্রাদ আলী স্ত্রী ফজিলতের নিকট থেকে পজেশন কিনে দোকান ঘর নির্মাণ করছেন। ফজিলতের ছেলে রহমান জানান, তার মা ছানাউল্লাহ দেওয়ানের কাছে ১৫ হাজার টাকায় একটি পজেশন বিক্রি করেছেন।

পানি উন্নয়ন বোর্ড ডিভিশন-২ এর নির্বাহী প্রকৌশলী কাওছার আলম বলেন, বেড়ি বাঁধের ঢালে কারো স্থাপনা নির্মাণের অধিকার নাই। যদি কেউ এটা করে থাকে তাহলে আমরা তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবো।

নগরকন্ঠ.কম/এআর

কোন কমেন্ট নেই

উত্তর দিন