মধুপুরে বয়স্কভাতা নিতে আসা প্রবীণদের চরম ভোগান্তি

মধুপুরে বয়স্কভাতা নিতে আসা প্রবীণদের চরম ভোগান্তি

0

নিজস্ব প্রতিবেদক, নগরকন্ঠ.কম ১৪ জুন : সরকারের সামাজিক নিরাপত্তা বলয়ের আওতায় ‘বয়স্ক ভাতা’ প্রাপ্তিতে নিদারুণ দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলার হাজারো প্রবীণ। সোনালী ব্যাংকের অব্যবস্থাপনার দরুন সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ভাতার জন্য লাইনে দাঁড়িয়ে প্রচণ্ড তাপদাহে তাদের হাঁসফাস করতে দেখা যায়। অনেকে গরমে অসুস্থ্য হয়ে ভাতা না নিয়ে স্থানীয় স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসা নিতে বাধ্য হন।

সোনালী ব্যাংক মধুপুর শাখায় বৃহস্পতিবার বিকেলে সরেজমিন দেখা যায়, ব্যাংকের সামনে বয়স্ক নারী, পুরুষের দীর্ঘ সারি। কথা বলে জানা গেল, তারা মাসিক ৫শ টাকা হারে ‘বয়স্ক ভাতা’ পেয়ে থাকেন। তিন মাস পর পর দেওয়া হয় এ ভাতা। গত ঈদুল ফিতরের আগে তিন মাসের ভাতা দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ব্যাংকিং অব্যবস্থাপনার দরুন তারা ভাতা পাননি।

ঈদের আগে একমাত্র সম্বল ভাতার টাকায় যৎসামান্য কেনাকাটার আশায় উন্মুখ ছিলেন সহস্রাধিক দরিদ্র ও বৃদ্ধ মানুষ। কিন্তু ব্যাংক ম্যানেজার তাদের সাফ জানিয়ে দেন ভাতার টাকা ঈদের পরে দেওয়া হবে। ফলে ব্যর্থ মনোরথ হয়ে ফিরে যান তারা। ঈদের পরে এসেও সময়ের কঠোর নিষেধাজ্ঞা পড়েছে তাদের জন্য।

বুধবার থেকে ভাতা বিতরণ শুরুর কথা। কিন্তু এ ভাতা পেতেও গত বুধ ও বৃহস্পতিবার দুদিন ধরে ঘুরছেন এসব প্রবীণরা। সকাল দশটায় এসে ব্যাংকের প্রবেশ পথ থেকে মেইন রোড় পর্যন্ত প্রচণ্ড রোদ উপেক্ষা করে তারা দাঁড়িয়ে ছিলেন।

ব্যাংকের ভাতা দেওয়ার কাজ শুরুর কথা সকাল দশটা থেকে। কিন্তু তারা দুপুরের খাওয়া-দাওয়ার পর ভাতা দেওয়া শুরু করে। টানা ৬ ঘন্টা বৃদ্ধ মানুষগুলো রোদে দাঁড়িয়ে বা বারান্দায় প্রচণ্ড গরমে বসে কাটিয়েছেন। বসার জন্য কোনো জায়গা না থাকায় তাদের দুর্ভোগ ছিল চরমে। পরে দুইটা থেকে শুরু সন্ধ্যা পর্যন্ত চলে ভাতা দেওয়ার কাজ। বয়স্কদের অনেকেই চোখে দেখে না। ঠিকমতো দাড়িয়ে থাকতে পারেনা। ভাতা নিয়ে সন্ধার পর বাড়ি ফিরতে নানা দুর্ভোগ ছাড়াও দূর দূরান্তে যেতে বাড়তি ভাড়া গুণতে হয় তাদের।

মধুপুর পৌর এলাকার জটাবাড়ী গ্রামের শতবর্ষী ছখিনা বেগম ভাতা নিতে এসে অসুস্থ হয়ে পড়েন। একই অবস্থা ছিল বাদে গাংগাইরের ফরমান আলী (৮৫), দিগরবাইদ গ্রামের রুন্দি বেওয়া(৯৫), বেকার কোণার আব্দুর রহমান(৯৮),শটিবাড়ীর হামেদ আলী(৮২), রানিয়াদের ঋষি পল্লীর লাচিয়া (৯৬), বাতাসী(৭৫)সহ অনেকের।

ঈদের আগে ভাতার টাকা দেওয়ার কথা থাকলেও পরে দেওয়ার কারণ কি জানতে চাইলে সোনালী ব্যাংক মধুপুর শাখার ব্যবস্থাপক আমির হোসেন জানান, ২১ মে বিকেলে নির্দেশনা এসেছে। তালিকা তথা কাগজ প্রস্তুতিতে ২ দিন লেগেছে। সবাইকে ঈদের আগে দেওয়া যায়নি। কাউকে কাউকে দেওয়া হয়েছে। যারা বাকি ছিল তাদে এখন দেওয়া হচ্ছে।

নগরকন্ঠ.কম/এআর

কোন কমেন্ট নেই

উত্তর দিন