শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে অস্ট্রেলিয়া

শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে অস্ট্রেলিয়া

0

ক্রীড়া ডেস্ক, নগরকন্ঠ.কম ১৬ জুন : অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চের ১৫৩ রানের নান্দনিক ইনিংস ও মিশেল স্টার্কের দুর্দান্ত বোলিংয়ে শ্রীলঙ্কাকে স্বাচ্ছন্দ্যেই হারালো অস্ট্রেলিয়া। ৩৩৫ রানের বড় লক্ষ্য পাড়ি দিতে নেমে ৯৭ রানের ইনিংস খেলে লঙ্কান অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে জয়ের স্বপ্ন দেখালেও সময়ের সঙ্গে সঙ্গে তা ধসে পড়ে। ৪৫ ওভার ৫ বলে ১০ উইকেট হারিয়ে ২৫৪ রানে থেমে যায় লঙ্কান ইনিংস। ৮৭ রানে বড় জয় পায় অস্ট্রেলিয়া।

এর ফলে ৫ ম্যাচ থেকে ৪ জয়ে ৮ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষস্থান দখল করেছে পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। এক ম্যাচ কম খেলে ৭ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে তাদেরই প্রতিবেশি নিউজিল্যান্ড। তৃতীয়স্থানে থাকা ইংল্যান্ডের সংগ্রহ ৪ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট।

এর আগে শনিবার লন্ডনের কেনিংটন ওভালে টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন শ্রীলঙ্কার অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে। অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চের ১৫৩ রানের দানবীয় ইনিংসে ৩৩৪ রানের বড় সংগ্রহ পায় অস্ট্রেলিয়া। শ্রীলঙ্কার পক্ষে ধনঞ্জয়া ডি সিলভা ও ইসুরু উদানা দুটি করে উইকেট তুলে নেন।

৩৩৫ রানের বিশাল লক্ষ্যে খেলতে নেমে দুর্দান্ত শুরু করে শ্রীলঙ্কা। ১৫ ওভার ৩ বল থেকে ১১৫ রান সংগ্রহ করেন দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান দিমুথ করুনারত্নে ও কুশল পেরেরা। ৩৬ বলে ৫২ রান করা কুশল পেরেরাকে বোল্ড আউট করে প্রথম আঘাত হানেন মিশেল স্টার্ক। দলীয় ১৫৩ রানের মাথায় দ্বিতীয় উইকেটের পতন হয় শ্রীলঙ্কার। ব্রেহেনড্রপের বলে অ্যালেক্স ক্যারির হাতে ক্যাচ দিয়ে ব্যক্তিগত ১৬ রান করে ফেরেন লাহিরু থ্রিমান্নে। এরপর কুশল মেন্ডিসকে সঙ্গে নিয়ে ক্রমেই বিপজ্জনক হয়ে ওঠা দিমুথ করুনারত্নেকে ফেরান রিচার্ডসন। দলীয় ১৮৬ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ৯৭ রানে ম্যাক্সওয়েলের হাতে ক্যাচ দেন লঙ্কান অধিনায়ক।

করুনারত্নে ফেরার পরপরই অ্যাঞ্জেলা মেথুস ও মিলিন্দা শ্রীবর্ধনের উইকেট তুলে নেন যথাক্রমে পেট কামিন্স ও মিশেল স্টার্ক। দলীয় ২০৯ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বেশ চাপে পড়ে যায় একবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। ২১৭ রানের মাথায় স্টার্কের তৃতীয় শিকার হন থিসারা পেরেরা। ব্যক্তিগত ৭ রানে এই ব্যাটসম্যান আউট হওয়ার পর জয়ের পাল্লা ভারী হয়ে যায় অস্ট্রেলিয়ার। ইনিংসের বাকি সময়টুকু শুধু দুঃস্বপ্নই হয়ে থাকে লঙ্কান ব্যাটসম্যানদের জন্য। আর কেউই প্রতিরোধ গড়তে পারেননি স্টার্ক-কামিন্স-রিচার্ডসনদের সামনে। যাওয়া আসার বৃত্তে আটকে যায় করুনারত্নের ব্যাটে দেখা জয়ের স্বপ্ন। অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে মিশেল স্টার্ক চারটি ও কেন রিচার্ডসন তিনটি উইকেট নিয়েছেন।

টস হেরে ব্যাট করতে নামা অস্ট্রেলিয়ার দুই ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার ও অ্যারন ফিঞ্চ সতর্ক ব্যাটিংয়ে ইনিংস শুরু করেন। দেখেশুনে খেলতে থাকা অস্ট্রেলিয়ার প্রথম উইকেটের পতন হয় দলীয় ৮০ রানের মাথায়। ব্যক্তিগত ২৬ রান করে ধনঞ্জয়া ডি সিলভার বলে বোল্ড আউট হন ডেভিড ওয়ার্নার। তার জায়গায় আসা উসমান খাজা বেশিক্ষণ সঙ্গ দিতে পারেননি অধিনায়ক ফিঞ্চকে। ব্যক্তিগত ১০ রানে ধনঞ্জয়া ডি সিলভার দ্বিতীয় শিকার হন এই ব্যাটসম্যান। তবে হতাশ করেননি সাবেক অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ। অ্যারন ফিঞ্চকে সঙ্গ দিয়ে গড়ে তোলেন ১৭৩ রানের বিশাল জুটি। সেই সঙ্গে বড় স্কোরের পথ প্রসারিত হয় অস্ট্রেলিয়ার।

দীর্ঘ এই জুটি ভাঙেন ইসুরু উদানা। ব্যক্তিগত ১৫৩ রানে করুনারত্নের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন অ্যারন ফিঞ্চ। দলীয় রান তখন ২৭৩। এরপর দলীয় স্কোরে ৫ রান যোগ হতেই আউট হন স্টিভেন স্মিথ। মালিঙ্গার বলে বোল্ড আউট হওয়ার আগে ৫৯ বলে ৭৩ রান সংগ্রহ করেন দলটির সাবেক এই অধিনায়ক।

একপ্রান্তে স্মিথ ও সন মার্শ আউট হলেও অন্যপ্রান্ত আটকে ঝড়ো ব্যাটিং করতে থাকেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। দলকে টেনে নিয়ে যান ৩৩৪ রানে। এরইমধ্যে এক ওভারে দুর্দান্ত দুটি রান আউট করে অ্যালেক্স ক্যারি ও পেট কামিন্সকে ফিরিয়ে কিছুটা হলেও অস্ট্রেলিয়ার রানের লাগাম টেনে ধরেন দুই উইকেট পাওয়া ইসুরু উদানা।
নিজেদের প্রথম চার ম্যাচের তিনটিতেই জয় নিয়ে সুবিধাজনক অবস্থানে অস্ট্রেলিয়া। অন্যদিকে বৃষ্টিতে আগের দুই ম্যাচ ভেসে যাওয়ায় চার ম্যাচের মাত্র এক ম্যাচ জিতে পয়েন্ট টেবিলের পাঁচ নম্বরে শ্রীলঙ্কা। ইনজুরি কাটিয়ে এ ম্যাচের মধ্যদিয়ে দলে ফিরছেন নুয়ান প্রদীপ।

নগরকন্ঠ.কম/এআর

কোন কমেন্ট নেই

উত্তর দিন