অস্ট্রেলিয়ার দাবানল: জরুরি সহায়তা প্রয়োজন ১১৩ প্রজাতি প্রাণীর

অস্ট্রেলিয়ার দাবানল: জরুরি সহায়তা প্রয়োজন ১১৩ প্রজাতি প্রাণীর

0
People wear protective face masks as they walk near a market in Beijing on February 9, 2020. - The death toll from the novel coronavirus surged past 800 in mainland China on February 9, overtaking global fatalities in the 2002-03 SARS epidemic, even as the World Health Organization said the outbreak appeared to be stabilising. (Photo by GREG BAKER / AFP)

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, নগরকন্ঠ.কম : তীব্র দাবানলের পর জরুরি সহায়তা প্রয়োজন এমন ১১৩টি প্রজাতির প্রাণী শনাক্ত করেছে অস্ট্রেলিয়া।বুধবার দেশটির সরকারের পক্ষ থেকে এমনটি জানানো হয়েছে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, দাবানলের কারণে প্রায় সকল প্রজাতিই তাদের ৩০ শতাংশ বাস্তুতন্ত্র হারিয়েছে। অস্ট্রেলীয় সরকার গঠিত একটি বিশেষজ্ঞ প্যানেল জানিয়েছে, সবচেয়ে বেশি সহায়তা প্রয়োজন এমন প্রজাতিগুলোর মধ্যে রয়েছে কোয়ালা, পাখি, মাছ এবং ব্যাং।অস্ট্রেলিয়ায় গত বছরের সেপ্টেম্বর শুরু হওয়া দাবানলে এখন পর্যন্ত বিভিন্ন প্রজাতির প্রায় ৫০ কোটি প্রাণী প্রাণ হারিয়েছে। অসংখ্য গাছ পুড়েছে, হাজার হাজার বনভূমি উজাড় হয়েছে, ভস্মীভূত হয়েছে কয়েক হাজার বাড়িঘর।

অস্ট্রেলীয় সরকারের প্রকাশিত এক তালিকায় দেখা গেছে, দাবানলের কবলে পড়া ভূমিতে থাকা প্রজাতিগুলো সংরক্ষণে জরুরি উদ্যোগ প্রয়োজন। সরকার গঠিত একটি বিশেষজ্ঞ প্যানেল জানিয়েছে, কয়েকটি প্রজাতির বেশিরভাগ আবাসস্থল ধ্বংস হওয়ায় সেগুলো বিলুপ্তির মারাত্মক ঝুঁকিতে রয়েছে। এসব প্রজাতির মধ্যে রয়েছে পাগস ব্যাং, ব্লু মাউন্টেন ওয়াটার স্কিঙ্ক (এক প্রকার গিরগিটি) এবং ক্যাঙ্গারু দ্বীপের ডানার্ট (ইদুর আকৃতির এক ধরনের প্রাণী)। এছাড়া কোয়ালা এবং স্মোকি মাউসের বাসস্থানের অনেকটাই ধ্বংস হয়েছে। তবে বাকিটা সংরক্ষণে জরুরি সহায়তা দরকার।

অস্ট্রেলিয়ার পরিবেশমন্ত্রী সুসান লে জানিয়েছেন, পরবর্তীতে উদ্ভিদ প্রজাতির তালিকা প্রকাশ করা হবে।

গতমাসে অস্ট্রেলিয়া বণ্যপ্রানীদের সাহায্যার্থ ৩৩ মিলিয়ন ডলার দান করার ঘোষণা দিয়েছিল। ওই টাকা প্রাণীদের চিকিৎসা, খাবারের কাজে ব্যবহার করা হবে বলে অস্ট্রেলিয়া সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল।

নগরকন্ঠ.কম/এআর

কোন কমেন্ট নেই

উত্তর দিন