পুঁজিবাজারের উন্নয়নে ডিএসই’র ১১ দফা বাজেট প্রস্তাব

পুঁজিবাজারের উন্নয়নে ডিএসই’র ১১ দফা বাজেট প্রস্তাব

0

অর্থনীতি ডেস্ক, নগরকন্ঠ.কম : পুঁজিবাজারের উন্নয়নে আসন্ন ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেটে তালিকাভুক্ত কোম্পানির জন্য বিদ্যমান কর হার কমানো ও লভ্যাংশে কর মওকুফের সীমা বৃদ্ধিসহ ১১ দফা প্রস্তাব দিয়েছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) কর্তৃপক্ষ।

মঙ্গলবার (১২ মে) ডিএসই’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী সানাউল হক স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তাফা কামাল ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যানের কাছে এ বাজেট প্রস্তাব জমা দেওয়া হয়।

ডিএসই থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বাজেট প্রস্তাবে উল্লেখ করা হয়, তালিকাভুক্ত কোম্পানির কর হার কমানোর প্রস্তাব করেছে ডিএসই। কর হার ২৫ শতাংশ থেকে ২০ শতাংশে নামানোর প্রস্তাব করা হয়েছে।

এছাড়া তালিকাভুক্ত ব্যাংক, বিমা ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের (মার্চেন্ট ব্যাংক ছাড়া) কর হার ৩৭.৫০ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৩২.৫০ শতাংশ করা, নতুন তালিকাভুক্ত কোম্পানির ক্ষেত্রে প্রথম ৩ বছর কর হার সুবিধা ১০ শতাংশ থেকে বাড়ানো ও নতুন বন্ডের তালিকাভুক্তির ক্ষেত্রে প্রথম ৩ বছর ১০ শতাংশ হারে কর সুবিধা দেওয়ার প্রস্তাব করা হয়েছে।

আসন্ন ২০২০-২০২১ বাজেট উপলক্ষে লভ্যাংশে কর মওকুফের সীমা ৫০ হাজার থেকে বাড়িয়ে ২ লাখ করার প্রস্তাব করা হয়েছে। এছাড়া যেসব লভ্যাংশের ক্ষেত্রে দুইবার অগ্রিম কর (এআইটি) নেওয়া হয়, সেখান থেকে অব্যাহতির প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি স্টক এক্সচেঞ্জের কর মওকুফ সুবিধা ১০ বছর করার প্রস্তাব করা হয়েছে।

এদিকে স্টক এক্সচেঞ্জের সদস্যদের কাছ থেকে অগ্রীম কর হার (এআইটি) ০.০৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ০.০১৫ শতাংশ করার প্রস্তাব করেছে ডিএসই।

এছাড়া এসএমই প্লাটফর্মের ক্ষেত্রে এআইটি না নেওয়া, ভ্যাট হার ১৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৯ শতাংশ করা এবং ২ বছর তালিকাভুক্ত সিকিউরিটিজে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে ৫ শতাংশ কর সুবিধা দেওয়ার প্রস্তাব করেছে।

নগরকন্ঠ.কম/এআর

কোন কমেন্ট নেই

উত্তর দিন