মনপুরায় জোয়ারে বিলীন পাকা সড়ক-বেড়িবাঁধ, জনদুর্ভোগ চরমে

মনপুরায় জোয়ারে বিলীন পাকা সড়ক-বেড়িবাঁধ, জনদুর্ভোগ চরমে

0

নিজস্ব প্রতিবেদক, নগরকন্ঠ.কম : তিন দিনের জোয়ারের পানির তোড়ে ১ কিলোমিটার বেড়িবাঁধসহ পাকা সড়ক বিধ্বস্ত হয়।

ভোলার মনপুরায় লঘুচাপের প্রভাব, উজানে পানির চাপ ও টানাবর্ষণে মেঘনার পানি বিপৎসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এতে মূল ভূ-খণ্ডে বাঁধ উপচে পানি প্রবাহিত হয়ে নিম্নাঞ্চলসহ ৪-৫ ফুট জোয়ারের পানিতে প্লাবিত হয়। গত তিন দিনের জোয়ারের পানির তোড়ে ১ কিলোমিটার বেড়িবাঁধসহ পাকা সড়ক বিধ্বস্ত হয়। এখনও প্লাবিত এলাকায় ত্রাণ কার্যক্রম পরিচালিত না হওয়ায় জনদুর্ভোগ চরম আকার ধারণ করেছে।

এদিকে মূল ভূ-খণ্ডের বিচ্ছিন্ন বেড়িবাঁধহীন কলাতলীর চর, চরনিজাম ও চর শামসুদ্দিনে ৫-৬ ফুট জোয়ারের প্লাবিত হয়। এতে ওই সমস্ত এলাকায় দিনে-রাতে দুই বেলা জোয়ারের পানিতে প্লাবিত হওয়ায় রান্না করতে না পারায় অর্ধাহারে-অনাহারে দিনযাপন করছেন বাসিন্দারা। ত্রাণ না পাওয়ায় ক্ষুব্ধ প্লাবিত এলাকার বাসিন্দারা।

প্লাবিত এলাকার বাসিন্দা জমিরউদ্দিন, হাসিনা বেগম, কামাল, জামাল, শরিফুল, মামুন, মিজান, বাচ্চু, শিখা রানী দাস, তপন চন্দ্র হাওলাদারসহ অনেকে জানান, গত তিন দিন ধরে সকাল ও রাতে পানিবন্দি অবস্থায় ছিলাম। ঘরে ভিতরে জোয়ারের পানি থাকায় রান্না হয়নি। কিন্তু এখন পর্যন্ত প্রশাসনের কেউ ত্রাণ দেয়নি। পানি ও মুড়ি খেয়ে কোনোমতে জীবনযাপন করছি।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, উপজেলার হাজিরহাট ইউনিয়নের দাসেরহাট, চরযতিন, সোনারচর ও চরফৈজুদ্দিন গ্রামের ১ কিলোমিটার বেড়িবাঁধসহ পাকা সড়ক বিধ্বস্ত হয়। এছাড়াও দক্ষিণ সাকুচিয়া ইউনিয়নের দক্ষিণ তালতলা বেড়িবাঁধসহ পাকা সড়ক ও উত্তর সাকুচিয়া ইউনিয়নের মাস্টারহাট ও আলমনগর এলাকায় বেড়িবাঁধ বিধ্বস্ত হয়।

দক্ষিণ সাকুচিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান অলিউল্লা কাজল জানান, প্রচণ্ড বৃষ্টির কারণে বরাদ্দকৃত চাল বিতরণ করা সম্ভব হয়নি। এছাড়াও ক্ষতি যে পরিমাণ হয়েছে তার চেয়ে অনেক কম বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে; তাই দিতে দেরি হচ্ছে। তবে বৃষ্টি কমলে বিতরণ করা হবে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) ডিভিশন-২ এর উপসহকারী প্রকৌশলী আবদুর রহমান জানান, ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধ মেরামতের কার্যক্রম চলছে।

উপজেলা এলজিইডির সহকারী প্রকৌশলী মো. নজরুল ইসলাম জানান, জোয়ারে ২শ’ মিটার পাকা সড়ক বিধ্বস্ত হয়েছে।

এ ব্যাপারে মনপুরা নির্বাহী অফিসারের দায়িত্বে থাকা চরফ্যাশন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. রুহুল আমিন জানান, মনপুরায় ১০ টন চাল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। দ্রুত দুর্গত এলাকায় চাল বিতরণ করতে চেযারম্যানদের বলা হয়েছে।

নগরকন্ঠ.কম/এআর

কোন কমেন্ট নেই

উত্তর দিন