বাংলাদেশে কেউ গৃহহীন থাকবে না: প্রতিমন্ত্রী এনামুর

বাংলাদেশে কেউ গৃহহীন থাকবে না: প্রতিমন্ত্রী এনামুর

0

নিজস্ব প্রতিবেদক, নগরকন্ঠ.কম : দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান বলেছেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা অনুযায়ী বাংলাদেশের কোনো মানুষ গৃহহীন থাকবে না। বন্যা, নদী ভাঙনসহ প্রাকৃতিক দুর্যোগে যারা বসতবাড়ি হারিয়েছেন তাদের জমি এবং ঘরের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে ৩ লাখ ভূমিহীনদের জমি এবং ৬ লাখ পরিবারকে যাদের জমি আছে তাদের দুর্যোগ সহনীয় আধাপাকা বাড়ি দেয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

শনিবার যুগান্তর অফিসে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় এবং ফ্রেন্ডশিপের যৌথ উদ্যোগে ‘গ্রামীণ জনপদে দুর্যোগ প্রেক্ষাপট: অগ্রগতি ও করণীয়’ বিষয়ক গোল টেবিল আলোচনায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন এনামুর রহমান। আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবস উপলক্ষে বৈঠকটির আয়োজন করা হয়।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, দুর্যোগ মোকাবেলায় সম্ভাব্য সব ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ ব্যাপারে দুই হাত উজার করে বাংলার মানুষের জন্য কাজ করার নির্দেশনা দিয়েছেন। আমরা সেই অনুপাতে কাজ করছি।

তিনি বলেন, প্রতিবছর হাওর অঞ্চলে বজ্রপাতে অনেক মানুষ মারা যায়। এ বিষয়টি আমাদের মাথায় আছে। বজ্রপাত নিয়ে কাজ করছি। ৪০ মিনিট আগেই সংকেত আসবে ফলে জানমাল রক্ষা হবে। আমরা ভূমিকম্প ব্যবস্থাপনায় অনেক পিছিয়ে আছি। তবে জাপানের সঙ্গে চুক্তি হচ্ছে। ফলে আগামী ৫০ বছরের মধ্যে বাংলাদেশ ভূমিকম্প সহনীয় রাষ্ট্রে পরিণত হবে। সময়টা বেশি মনে হলেও ভবিষ্যত প্রজন্ম সেটার সুবিধা ভোগ করবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা সাইক্লোন সেন্টার, ৫৫০টি মুুজিব কেল্লাসহ উন্নত আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণ অব্যাহত রেখেছি। বর্তমানে মানুষের আর্থসামাজিক অবস্থা বৃদ্ধি পেয়েছে, রুচি উন্নত হয়েছে। ফলে সেল্টার হোমগুলোতে সোলার পাওয়ার প্ল্যান্ট, নারী-পুরুষের জন্য আলাদা আলাদা ঘর, উন্নত বাথরুম ব্যবস্থা করা হয়েছে। হাওর, পাহাড় এবং উপকূলীয় নদী অববাহিকা- ডেলটা প্ল্যান নেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, দুর্যোগ মোকাবেলায় যখন যা প্রয়োজন তাই করছি। প্রতিবছরই আধুনিক যন্ত্রপাতি কিনেছি। আজ জানলাম পাহাড়ে পানির কষ্ট হয়। বিষয়টি আমাকে মর্মাহত করেছে। মানবিক দিকটি বিবেচনা করে প্রধানমন্ত্রী অনুমতি দিলে আশা করছি, এ ব্যাপারে প্রকল্প হাতে নেয়া হবে।

যুগান্তর অফিসে সামাজিক দূরত্ব মেনে অতিথিদের উপস্থিতিতে বিকাল তিনটায় বৈঠকটি শুরু হয়। এছাড়াও অনলাইনের মাধ্যমে অনেক বিশেষজ্ঞ আলোচনায় যোগ দেন। বৈঠকটি যুগান্তর ফেসবুক পেজে সরাসরি প্রচারিত হয়। সন্ধ্যা সোয়া ৬টায় বৈঠকটি শেষ হয়।

বৈঠকটিতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ক্যাপ্টেন (অব.) এবি তাজুল ইসলাম এবং সভাপতিত্ব করেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মহসীন। আলোচনার শুরুতেই স্বাগত বক্তব্য দেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক আতিকুল ইসলাম।

নগরকন্ঠ.কম/এআর

কোন কমেন্ট নেই

উত্তর দিন