রবিবার, ২৩ Jun ২০২৪, ১২:২১ পূর্বাহ্ন

‘ছেলের দিকে তাকালেই কলিজাটা ছিঁড়ে যায়’

‘ছেলেটা আমার বুকের দুধ ও খাইতে চায় না। শরীর দুর্বল। শুধু ফ্যাল ফ্যাল করে তাকায়। তার দিকে তাকাই থাকতে পারি না। কলিজাটা ছিঁড়ে যায়’- বলছিলেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (ঢামেকে) ডেঙ্গু আক্রান্ত শিশু তামিমের মা রোসনা বেগম।

ঢামেকের পুরাতন বিল্ডিংয়ের ২য় তলার শিশু ওয়ার্ডের একটি বেডে বসে কথা হয় তামিম ও তার মা রোসনা বেগমের সাথে। তিনি কান্না জড়িত কণ্ঠে জানান, গত শনিবার রাতে হঠাৎ করে জ্বর আসে তামিমের। তখন তার বাবা দেলোয়ার ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে আসেন। চিকিৎসকরা পরীক্ষা করে জানান তামিমের ডেঙ্গু হয়েছে। তারপর থেকে এখানে চিকিৎসা চলছে।

কেবল তামিম একা নয় তার মতো আরও অনেক ডেঙ্গু আক্রান্ত শিশুকে নিয়ে ঢামেকে আসছেন স্বজনরা।

একই ওয়ার্ডে কথা হয়, ডেঙ্গু আক্রান্ত ৭ বছর বয়সী শিশু খাদিজার সাথে। হালিমা বেগম জানান, খাদিজার শরীর দুর্বল ও মুখে স্বাদ না থাকায় কিছুই খেতে পারছে না।

হালিমা বেগম বলেন, এক সপ্তাহ আগে খাদিজার জ্বর আসে। তার বাবা ফার্মেসি থেকে নাপা নিয়ে খাওয়ান। এরপর জ্বর কমে যায়। দুদিন পর পুনরায় ১০৪ ডিগ্রি জ্বর আসে। সাথে গায়ে খিঁচুনি। যাত্রাবাড়ীর একটা ক্লিনিকে নিয়ে গেলে, সেখানে খাদিজার ডেঙ্গু ধরা পড়ে। চিকিৎসকরা ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে আসার পরামর্শ দেন। সর্বশেষ বুধবার ডাকা মেডিকেলে ভর্তি করা হয় খাদিজাকে। এখন অনেকটাই সুস্থ।

খাদিজা জানায়, মুখে গন্ধ লাগে,কিছু খাইতে পারিনা। এখানে থাকতে ভালো লাগে না, বাসায় যেতে চাই। এখানে টিভি নেই। ডাক্তাররা ইনজেকশন দেয় ভয় লাগে।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2017 Nagarkantha.com