করোনার টিকা নিয়ে হুলস্থূল, মাইকিং করিয়ে সর্তকতা

করোনার টিকা নিয়ে হুলস্থূল, মাইকিং করিয়ে সর্তকতা

0

নিজস্ব প্রতিবেদক, নগরকন্ঠ.কম : সিলেটের ওসমানীনগরে করোনা ভাইরাসের টিকা নিয়ে গ্রামে গ্রামে লোক প্রবেশের খবরে হুলস্থূল শুরু হয়েছে। উপজেলার উমরপুর ইউনিয়নের মাঠিহানীসহ পার্শ্ববর্তী এলাকায় এমন খবরে লোকজনের মধ্যে এ হুলস্থূল শুরু হতে দেখা যায়।

বুধবার সকালে করোনা ভাইরাসের টিকা নিয়ে দুই ব্যক্তি মাঠিহানি গ্রামে প্রবেশ করেছে বলে খবর ছড়িয়ে পড়ে। এসময় বাচ্চাদের করোনা ভাইরাসের টিকা দেয়া হবে বলে তারা বাড়ি বাড়ি যায় বলেও খবর রটে। বিষয়টি জানতে পেরে লোকজনের মধ্যে শুরু হয় কানাঘুষা। গ্রামবাসী খবরটি মোবাইল ফোনের মাধ্যমে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ পার্শ্ববর্তী এলাকায় জানাতে থাকেন। এরপর দুপুরে স্থানীয় ইউপি সদস্যের পক্ষ থেকে সচেতনতার জন্য দুইটি মসজিদ থেকে মাইকিং করানো হয়। মসজিদের মাইকিং শোনার পরে গ্রামের মানুষরা সচেতন হলে লাপাত্তা হয়ে যায় ওই টিকাদানকারী প্রতারকরা।

জানা যায়, উপজেলার উমরপুর ইউনিয়নের মাটিহানি এলাকায় করোনা ভাইরাসের টিকা প্রদানের জন্য বাড়ি বাড়ি যাচ্ছে। বিষয়টি এলাকাবাসীর মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে এলাকার লোকজনের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়। গ্রামবাসীর মধ্যে শুরু হয় হইচই। খবর পেয়ে স্থানীয় সাংবাদিকরা সরেজমিনে এলাকায় গিয়ে প্রতারক চক্রের কোনো সন্ধান পাননি বা ওই টিকাদানকারী ব্যক্তিদের কারা দেখেছে সে ব্যাপারেও সুনির্দিষ্ট কোনো বক্তব্যও পাওয়া যায়নি।

উমরপুর ইউপি সদস্য সেলিম মিয়া বলেন, আমার কাছে একাধিক ফোন এসেছে যে, কারা যেন করোনা ভাইরাসের টিকা দিতে আমার ওয়ার্ডের অন্তর্ভুক্ত মাটিহানি এলাকায় অবস্থান করছে। এ ব্যাপারে গ্রামবাসী লোকজনের সর্তকতার জন্য আমি স্থানীয় মসজিদে মাইকিং করিয়েছি। এ রকম ভুয়া টিকা নিয়ে কেউ যেন প্রতারণার শিকার না হন সে ব্যাপারে সবাইকে সর্তক থাকার আহ্বান জানাই।

উমরপুর ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম কিবরিয়া বলেন, এরকম খবর আমিও পেয়েছিলাম। তবে কারা টিকা নিয়ে এসেছিল এ ব্যাপারে কেউই সুনির্দিষ্ট কিছু বলতে পারেননি।

ওসমানীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ রাশেদ মোবারক বলেন, আমাদের কাছে এধরনের খবর নেই। এ ব্যাপারে কোনো মসজিদে যদি মাইকিং হয়ে থাকলে খোঁজ নিয়ে দেখব।

নগরকন্ঠ.কম/এআর

কোন কমেন্ট নেই

উত্তর দিন