রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ১২:১০ পূর্বাহ্ন

এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ শনিবার

শনিবার এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হবে। সকাল সাড়ে দশটায় এই ফল ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। পরীক্ষা ছাড়া ফল ঘোষণা করা হচ্ছে। জেএসসি এবং এসএসসির ফলাফলের গড় করে এইচএসসির ফল তৈরি করা হয়েছে।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে এবার পরীক্ষা ছাড়া এসএসসি, জেএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলের ভিত্তিতে এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের গড় মূল্যায়ন করা হয়েছে।

২০২০ সালের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা হওয়ার কথা ছিল গত বছরের এপ্রিলে। দেশের ১১টি শিক্ষা বোর্ডের ১৩ লাখ ৬৫ হাজার ৭৮৯ শিক্ষার্থীর এবার এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় এই পরীক্ষা হয়নি। পরীক্ষার পরিবর্তে পরীক্ষার্থীদের এসএসসি ও জেএসসি এবং সমমানের পরীক্ষার গড় ফলের ভিত্তিতে মূল্যায়নের সিদ্ধান্ত আগেই নেওয়া হয়েছিল। ফল প্রকাশের জন্য সংশ্লিষ্ট তিনটি আইন সংশোধনের গেজেট গত সোমবার প্রকাশিত হয়।

২৬ জানুয়ারি মঙ্গলবার পরীক্ষা ছাড়া এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ করতে সংসদে পাস হওয়া তিনটি সংশোধিত আইনের গেজেট জারি করা হয়। এর আগে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ তিনটি বিলে সম্মতি দেন। রাষ্ট্রপতির সম্মতির পর বিল তিনটি আইনে পরিণত হয়।

২৫ জানুয়ারি সোমবার রাতে ‘ইন্টারমিডিয়েট অ্যান্ড সেকেন্ডারি এডুকেশন (অ্যামেন্ডমেন্ট) আইন-২০২১’, ‘বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষাবোর্ড (সংশোধন) আইন-২০২১’ ও ‘বাংলাদেশ মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড (সংশোধন) আইন-২০২১’- এর গেজেট প্রকাশ করা হয়।

এসএসসি ও জেএসসির পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে এইচএসসি পরীক্ষার ফল দিতে এই আইনটি পাস করা হয়।

গত বছরের ৭ অক্টোবর সংবাদ সম্মেলন করে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি জানিয়েছিলেন, পঞ্চম ও অষ্টমের সমাপনীর মতো এইচএসসি পরীক্ষাও এবার নেওয়া যাচ্ছে না। তিনি বলেছিলেন, অষ্টম শ্রেণির সমাপনী এবং এসএসসির ফলাফলের গড় করে এবারের এইচএসসির ফল নির্ধারণ করা হবে। জেএসসি-জেডিসির ফলাফলকে ২৫ এবং এসএসসির ফলকে ৭৫ শতাংশ বিবেচনায় নিয়ে উচ্চমাধ্যমিকের ফল ঘোষিত হবে বলে জানিয়েছিলেন তিনি।

এর আগে, করোনা সতর্কতায় দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি ১৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বাড়িয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। শুক্রবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা এম এ খায়ের স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, কভিড-১৯ মহামারির কারণে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে (কওমি ছাড়া) চলমান ছুটি বাড়ানো হয়েছে। শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি সংশ্লিষ্ট সব পক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে এই সিদ্ধান্তের কথা জানান।

আগের ঘোষণা অনুযায়ী, ৩০ জানুয়ারি শনিবার পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটির ঘোষণা ছিল।

এর আগে শিক্ষামন্ত্রী দিপু মনি জানিয়েছেন, কবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলবে তা ৪ ফেব্রুয়ারি পর সিদ্ধান্ত নেবে সরকার। তবে ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার প্রস্তুতি নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার পর দশম ও দ্বাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের নিয়মিত ক্লাস হবে। বাকিরা সপ্তাহে এক দিন ক্লাসে যাবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী।

এর আগে ২৬ জানুয়ারি মঙ্গলবার ফেব্রুয়ারির প্রথম বা দ্বিতীয় সপ্তাহের মধ্যে স্কুল খোলার পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন। দুপুরে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের এ কথা জানান তিনি। এক্ষেত্রে প্রতিদিন সব শ্রেণির ক্লাস না নিয়ে একদিন এক শ্রেণির ক্লাস নেয়া হবে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী।

ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝিতে খুলে দেয়া হবে স্কুল-কলেজ। এসএসসি পরীক্ষার্থীদের ক্লাস নেয়া হবে ৯ মে পর্যন্ত এবং এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের ১৫ জুন পর্যন্ত। এমন পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

এর আগে, ২৭ জানুয়ারি বুধবার জানানো হয়, ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝিতে খুলে দেয়া হবে স্কুল-কলেজ। এসএসসি পরীক্ষার্থীদের ক্লাস নেয়া হবে ৯ মে পর্যন্ত এবং এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের ১৫ জুন পর্যন্ত। এমন পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

এরপর স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার পরিকল্পনা রয়েছে। এসএসসি পরীক্ষার্থীদের জন্য প্রতিটি বিষয়ে ৩০টি ক্লাস নেয়া হবে। এইচএসসি শিক্ষার্থীদের ৩৮ টি করে ক্লাস হবে। সপ্তাহে ৬ দিন করে ক্লাস হবে।

বাংলাদেশে গত ৮ মার্চ ২০২০ প্রথম করোনা রোগী শনাক্তের পর গত ১৭ মার্চ ২০২০ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। কয়েক ধাপে বাড়ানোর পর ৩০ জানুয়ারি ২০২১ পর্যন্ত ছুটি ছিল, সেই ছুটি এবার ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১ পর্যন্ত বাড়ালো সরকার। ছুটি চলাকালে অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রম চলমান থাকবে। সরকার গত ২৯ মার্চ থেকে মাধ্যমিকের এবং ৭ এপ্রিল থেকে প্রাথমিকের রেকর্ড করা ক্লাস সংসদ টেলিভিশনে প্রচার করছে।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2017 Nagarkantha.com