মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ০৬:৩১ অপরাহ্ন

ফের রোহিঙ্গা নিধনের শঙ্কা

সেনাবাহিনী ক্ষমতাগ্রহনের একদিনের মাথায় পাল্টে গেছে মিয়ানমারের চিরচেনা রুপ। সুচির পক্ষে নেই কোন বিক্ষোভ কিংবা সমাবেশ। উল্টো সেনাবাহিনীর সমর্থনে চলছে আনন্দ মিছিল।

তবে এখনো থমথমে নেপিদো, ইয়াঙ্গুন সহ বড় বড় শহরগুলো। বেশিরভাগ জায়গায় এখনো বন্ধ মোবাইল আর ইন্টারনেট সেবা।

ইয়াঙ্গুন বাসিন্দা কিয়াও ঝও বলেন, অতীতে সেনাবাহিনীর কর্মকান্ডের কথা ভুলে যায়নি আমরা। ঐক্যবদ্ধ থাকলে ফের শান্তি ফিরবে।

লেই লেই উইন, ইয়াঙ্গুনের আরেক বাসিন্দা লেই লেই উইন বলেন, করোনার কারনে এমনিতেই আমরা বিপর্যস্থ। প্রতিনিয়ত খাদ্য, স্বাস্থ্যসহ একাধিক সমস্যা নিয়ে আছি। এরমধ্যেই সেনা অভ্যুত্থান আমাদের শুধু পিছিয়েই দিবে।

ক্ষমতা দখলের একদিন না পেরোতেই সুচি প্রশাসনের ২৪ মন্ত্রী, উপমন্ত্রী আর প্রতিমন্ত্রীকে বরখাস্ত করেছে দেশটির সেনাবাহিনী। প্রতিরক্ষা, স্বরাষ্ট্র সহ বিভিন্ন মন্ত্রনালয়ে নতুন ১১ মন্ত্রীকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে, যাদের বেশিরভাগই উর্দ্ধতন সেনা কর্মকর্তা।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ফের সেনাক্ষমতায় দেশটিতে কমে যাবে বিদেশী বিনিয়োগ। এতে ক্ষতিগ্রস্থ হবে দেশটির অর্থনীতি। আর জাতিসংঘের শঙ্কা, সেনাবাহিনী ক্ষমতায় আসায় বিলম্বিত হতে পারে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন।

জাতিসংঘের মুখপাত্র বলেন, এমন পরিস্থিতিতে মিয়ানমারে থাকা ৬ লাখ রোহিঙ্গাদের ভবিষ্যৎ নিয়েই বেশি চিন্তিত আমরা। সেনা অভ্যুণ্থানের পর বাংলাদেশ থেকে রোহিঙ্গাদের  মিয়ানমারে ফেরত পাঠানো এখন আরও বেশি চ্যালেন্জিং হয়ে দাড়াবে।

সামরিক বাহিনী ক্ষমতা দখলের পর মিয়ানমারের ওপর নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহালের হুমকি দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। বিক্ষোভ হয়েছে জাপান, ভিয়েতনাম, থাইল্যান্ডে।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2017 Nagarkantha.com