মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ০৬:৫৬ অপরাহ্ন

শিরোনামঃ

মায়ার্সের লড়াকু সেঞ্চুরিতে শক্ত অবস্থানে উইন্ডিজ

এ প্রতিবেদন লেখার সময় ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ ৩ উইকেটে ২৩৫ রান। জয়ের জন্য এখনো প্রয়োজন ১৬০ রান। আর বাংলাদেশের দরকার ৭ উইকেট। কাইল মায়ার্স ১০৭ ও এনক্রুমা বোনার ৬৫ রানে ব্যাট করছেন।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে চতুর্থ দিনে সফরকারিদের সংগ্রহ ছিলো ৩ উইকেটে ১১০ রান। এরআগে, মধ্যাহ্নভোজের বিরতির পর ইনিংস ঘোষণা করে বাংলাদেশ। আট উইকেটের বিনিময়ে দলীয় ২২৩ রানের মাথায় নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করে টাইগাররা। এর ফলে ম্যাচ জিততে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সামনে লক্ষ্য ৩৯৫ রান।

নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালোই শুরু করেছিলেন সফরকারী দলের দুই ওপেনার ক্রেগ ব্রাফেট ও জন ক্যাম্পবেল। কিন্তু ১৭তম ওভারের প্রথম বলে ক্যাম্পবেলকে এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলেন মেহেদী হাসান মিরাজ। নিজের পরের ওভারে ব্রাফেটকেও তুলে নেন এ অলরাউন্ডার। এরপর শেন মোজলিকেও এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলেন তিনি। পরে রুমাহ বোনার ১৫ (৬৩)* ও কে আর মেয়ার্স ৩৭ (৪৮)* শক্ত হাতে হাল ধরলে কোন বিপদ ছাড়াই দিন শেষ করে তারা।

ক্যারিয়ারের ১০ম সেঞ্চুরি করার পর শ্যানন গ্যাব্রিয়েলের বলে কেমার রোচের হাতে ক্যাচ দেওয়ার আগে ১৮২ বলে ১০ চারে ১১৫ রান করেন মুমিনুল। একই সঙ্গে এই মাঠে খেলা ১০ টেস্টের মধ্যে সপ্তম সেঞ্চুরি তার। আর ৫ চারে ১১২ বলে ৬৯ রান করে জোমেল ওয়ারিকানের বলে কাইল মেয়ার্সের হাতে ক্যাচ দিয়ে প্যাভিলনের পথ ধরেন লিটন।

এরপর আর রানের হাল ধরতে পারেননি কেউই। একে একে সাজঘরে ফেরেন তাইজুল ইসলাম ৩ (৯) এবং মেহেদী হাসান মিরাজ ৭ (১১)। মাঠে অপরাজিত ছিলেন নাঈম হাসান ১ (১)।

এর আগে ৪৭ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে তৃতীয় দিনের খেলা শেষ করে বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশের হয়ে ব্যাট করতে নেমে এক ওভারেই তামিম ইকবাল ও নাজমুল হাসান শান্ত। দুজনকে ফিরিয়ে দেন রাকিম কর্নওয়াল। তামিম ৪ বল খেলে এলবিডাব্লিউ হন। রিভিউ নিয়েও বাঁচতে পারেননি তিনি। আর দুই বল খেলে স্লিপে দাঁড়ানো জার্মেইন ব্ল্যাকউডের হাতে ক্যাচ দেন শান্ত। এদিন দুই বলের ব্যবধানে দুজন ডাক মেরেছেন।

শান্ত-তামিমের পর দ্রুত ফিরে যান সাদমান ইসলাম। দলীয় ৩৩ রানে শ্যানন গ্যাব্রিয়ের বলে দা সিলভার হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান তিনি। আউট হওয়ার আগে তিনি ৪২ বলে ৫ রান করেন।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে চট্টগ্রাম সিরিজের প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের সংগ্রহ ছিল ৪৩০ রান। বিশাল এই রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ২৫৯ রানে থেমে যায় ক্যারিবীয়দের ইনিংস।

আগের দিনের ২ উইকেটের বিনিময়ে ৭৫ রান নিয়ে শেষ করলেও তৃতীয় দিনের শুরুতেই ক্যারিবীয় শিবিরে আঘাত হানেন তাইজুল। সেই ধাক্কা কাটিয়ে ৯৯ তানের ঝুঁটি গড়েন ব্ল্যাকউড ও দা সিলভা। তবে ঠিক চা বিরতির আগে সাজঘরে ফিরেছেন দুইজন। বিরতি থেকে ফিরে বটাইগারদের স্পিন ঘুরনিতে বেশিক্ষণ স্থায়ী হতে পারেননি ক্যারিবীয় ব্যাটসম্যানরা।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2017 Nagarkantha.com