বুধবার, ০৩ মার্চ ২০২১, ০১:৩৯ পূর্বাহ্ন

শিরোনামঃ
সৃজনশীল জাতি গঠনে শিশুদের ডিজিটাল নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে : টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বায়োটেক প্লাজমা প্রযুক্তির যুগে প্রবেশ করল বাংলাদেশ : পলক বান্দরবানে ‘নিরাপদ অভিবাসন ও দক্ষতা উন্নয়ন’ শীর্ষক সেমিনার কাউছ মিয়া মুজিববর্ষের সেরা করদাতা বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক হলেন আবুল বশর নাইকো দুর্নীতি মামলা : খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন ১৮ মার্চ নাইজেরিয়ায় অপহৃত ২৭৯ শিক্ষার্থীর সকলেই মুক্ত : গভর্নর বিশ্বে ২০৫০ সালের মধ্যে প্রতি চারজনে একজন শ্রবণ সমস্যায় ভুগবে : ডব্লিওএইচও বঙ্গবন্ধুর গতিশীলতা ও দূরদর্শিতার উপর ভিত্তি করে তৈরি হয়েছে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রনীতি : পররাষ্ট্রমন্ত্রী একাত্তরের ৩ মার্চের জনসভাতেও বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতার কথা বলেন

ভারতে ঝড় তুলতে যাচ্ছে মুরগি ছানা ‘কু’

বিবিসির একটি প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।
হলুদ রঙের এই মুরগি ছানারটির নাম ‘কু’। এটি ভারতের নতুন  মাইক্রোব্লগিং অ্যাপ। ভারতের সরকারি বিভাগগুলো এখন টুইটারের বদলে ‘কু’ অ্যাপ ব্যবহার করতে শুরু করেছে। টুইটার একাউন্ট ব্যবহার করে ভারতে ভুয়া তথ্য ছড়ানোর কারণেই ভারত সরকার এই অ্যাপ ব্যবহার করতে শুরু করেছে।

ভারত সরকার টুইটারের দাবি জানিয়েছিল যে, কিছু কিছু টুইটার একাউন্ট থেকে ভুয়া তথ্য ছড়ানো হচ্ছে। সে কারণে যেন সেসব একাউন্ট বন্ধ করে দেওয়া হয়। প্রথমে দাবি মেনে নিয়ে টুইটার ওই একাউন্টগুলো সাময়িকভাবে বন্ধ করে দিলেও পরবর্তীতে সেটা আবার চালু করে দেয়।

টুইটারে ভারত সরকার যাদের একাউন্ট বন্ধের দাবি জানিয়েছিলেন তারা ছিলেন সাংবাদিক, সংবাদ প্রতিষ্ঠান ও বিরোধী রাজনীতিক।

টুইটারের বিরুদ্ধে ‘দ্বি-মুখী আচরণ’ এর অভিযোগ এনে ভারত সরকার বলেছে, যুক্তরাষ্ট্রের ক্যাপিটল ভবনে ভাঙচুরের সময় যাদের বিরুদ্ধে বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়ানোর অভিযোগ আনা হয়েছিল টুইটার তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছিল, কিন্তু ২৬শে জানুয়ারি কৃষক বিক্ষোভাকারীরা যখন একইভাবে দিল্লির লাল কেল্লা অবরোধ করল, তখন তাদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থাই নিলো না টুইটার।

বর্তমানে ভারতে সরকারি দলের সমর্থকরা তাদের মত প্রকাশের জন্য কু ব্যবহার করতে শুরু করেছে। এমনকি তারা ভারতে টু্‌ইটার নিষিদ্ধ ঘোষণা করার দাবি জানিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় হ্যাশটাগও শেয়ার করছেন।

নতুন এই অ্যাপটির বিশেষ আকর্ষণ হল এটি ইতোমধ্যে ভারতের পাঁচটি জাতীয় ভাষায় কাজ করতে পারে। পাশাপাশি ইংরেজিও কাজ করে। এছাড়াও আরো ১২টি ভাষায় এই অ্যাপ চালু করার পরিকল্পনা নিয়েছে তারা।

নতুন এই ‘কু’ অ্যাপটির মূল প্রতিষ্ঠান ভারতের ব্যাঙ্গালোরের বম্বিনেট টেকনোলজিস। তারা এই অ্যাপটি বানানোর জন্য ৪১ লাখ ডলার তহবিল জোগাড় করে। আর এই অ্যাপটির পেছনে যাদের ভূমিকা আছে তাদের মধ্যে একজন হল মোহানদাস পাই। তিনি ইনফোসিস কোম্পানির সহ প্রতিষ্ঠাতা এবং ভারতে বিজেপি সরকারের সোচ্চার সমর্থক।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2017 Nagarkantha.com