মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০১:০৭ পূর্বাহ্ন

“উত্তাল পাকুন্দিয়া” আওয়ামী লীগকে না জানিয়ে জেলা কমিটি ২২ বছর পর রাতের আঁধারে থানা আহবায়ক ঘোষণা

কিশোরগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ ইদের পরদিন হঠাৎ নতুন এক কমিটি ঘোষণা করে কিশোরগঞ্জ-২ আসনের পাকুন্দিয়া উপজেলায় “কানার” হাতে কুড়াল প্রধান করা হয়েছে।
সাবেক সংসদ সদস্য জনাব এডঃ মোঃ সোহরাব উদ্দিনকে পাকুন্দিয়ার আওয়ামী লীগকে না জানিয়ে জেলা কমিটি ২২ বছর পর রাতের আঁধারে থানা আহবায়ক ঘোষণা করে।এতে শনিবার সকালে পাকুন্দিয়ার আওয়ামী লীগ ক্ষিপ্ত হয়ে রাস্তায় নেমে পড়ে।পাকুন্দিয়ার উপজেলা আওয়ামী লীগ জানায়, আবারও দলীয় নেতা কর্মীরা মামলার মুখে পড়বে। সোহরাব উদ্দিন এমপি থাকা অবস্থায় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে দুইশ থেকে তিনশ মামলা ছিল।বর্তমানে কিশোরগঞ্জ-২ আসনের এমপি নূর মোহাম্মদ থাকায় আওয়ামী লীগের কোনো নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা নেই।পাকুন্দিয়ার আওয়ামী লীগ মনে করে, জেলা আওয়ামী লীগ আমাদের শান্তিতে থাকতে দিবে না।যাকে আহবায়ক করা হয়েছে তিনি যুদ্ধাপরাধী মামলার চলমান আসামি। কী করে এমন একজন লোককে আহবায়ক বানানো হয়েছে তা নিয়ে পাকুন্দিয়া বাসীর মধ্যে চরম ক্ষোভ দেখা দিয়েছে।এলাকাবাসী এমনও জানায়, সোহরাব উদ্দিন সাংসদ থাকাকালীন পাটুয়াভাঙ্গা ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের যুবদলের চলমান সেক্রেটারিকে যুবলীগের চলমান সেক্রেটারি হিসেব নিযুক্ত করে।তিনি বিএনপি-শিবির নিয়ে রাজনীতি করতে পছন্দ করেন।আওয়ামী লীগের লোকজন বিনা কারণে ওনার কাছে হামলা ও মামলার শিকার হয়।আজ শনিবার অবৈধ আহবায়ক এর বিরুদ্ধে মানববন্ধনের মাধ্যমে পাকুন্দিয়ার সর্বস্তরের আওয়ামী লীগ রাস্তায় নেমে পড়ে।এবং সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে যুগ্ম-আহবায়ক মোতায়ের হোসেন স্বপন ও যুগ্ম-আহবায়ক এডঃ মোঃ হুমায়ুন কবীর, ভিপি শফিক, সভাপতি কৃষক লীগ বাবুল আহমেদ, মহিলা আওয়ামী লীগের নেত্রী খালেদা বেগমসহ কিশোরগঞ্জের জেলা আওয়ামী লীগকে নিন্দা ও ধিক্কার জানান।সাংবাদিক সম্মেলনে নেতারা জানান, বর্তমান সাংসদ সাবেক আইজিপি নূর মোহাম্মদকে নতুন আহবায়ক কমিটির বিষয়ে কিছুই জানানো হয়নি।মানবন্ধন ও সম্মেলনে আহবায়ক কমিটিকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হয়।এবিষয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করে পাকুন্দিয়ার উপজেলা আওয়ামী লীগ।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2017 Nagarkantha.com