মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০২:৫৭ পূর্বাহ্ন

ঢাকায় ফিরল টাইগাররা

সফল মিশন শেষে জিম্বাবুয়ে থেকে দেশে ফিরেছে বাংলাদেশ দল। বিমানবন্দর থেকে বেরিয়ে সরাসরি জৈব সুরক্ষা বলয়ে ঢুকেছেন ক্রিকেটার-কোচিং স্টাফরা।
জিম্বাবুয়ে থেকে সকাল ৯ টায় দেশে ফিরেছে বাংলাদেশ দল।

এরআগে জিম্বাবুয়ের হারারে থেকে অভ্যন্তরীন ফ্লাইটে দক্ষিণ আফ্রিকার জোহানেসবার্গে পৌঁছে বাংলাদেশ দল। সেখানে যাত্রা বিরতি দিয়ে কাতারের দোহা। এরপর ঢাকায় পৌঁছে ক্রিকেটাররা। জিম্বাবুয়েতে টেস্ট, ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি, তিনটি সিরিজই জেতে বাংলাদেশ। এবার ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়ার চ্যালেঞ্জ নেবে টাইগাররা।

এদিকে, ৫ ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে বিকেলে ঢাকায় আসবে অজিরা। বিশেষ ইমিগ্রেশন শেষে সুরক্ষা বলয়ে যাবে অস্ট্রেলিয়া দল। মিরপুরে টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরু হবে তিন আগস্ট।

পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে ব্যাট-বলের লড়াই ছাপিয়ে আলোচনায় কোভিড প্রোটোকল। সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন, অজিদের শর্ত মেনে সর্বোচ্চ সতর্ক বিসিবি। কেউ করোনা আক্রান্ত হলেও থামবে না সিরিজ, জানিয়েছেন প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন।

করোনাকালে প্রথম উইন্ডিজ-পরে শ্রীলঙ্কাকে আতিথ্য দিয়েছে বাংলাদেশ। এবার আসছে অস্ট্রেলিয়া। এই সিরিজের হিসেব আলাদা। জৈব সুরক্ষা বলয়-কোয়ারেন্টিন ইস্যুতে অজিদের একগাদা শর্ত বিসিবির চ্যালেঞ্জ কঠিন করেছে।

অতিথিদের চাহিদাপত্রে সবার ওপরে হোটেল ব্যবস্থা। দুই দল ও ম্যাচ অফিসিয়ালরা থাকবেন পাঁচ তারকা হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে। এ সময়ে কোন অতিথি থাকবে না এখানে। সিরিজে সংশ্লিষ্টরা এরমধ্যেই হোটেলে দশ দিনের কোয়ারেন্টিনে প্রবেশ করেছেন। সুরক্ষা বলয়ের শর্তে খেলতে পারছেন না মুশফিক, শেষ মুহূর্তে ছিটকে গেছেন লিটন।

তোড়জোড়ের শুরুটা অবশ্য বিমান বন্দর থেকেই। বৃহস্পতিবার চার্টার্ড ফলাইটে ঢাকা পৌঁছে থেকে সরাসরি গাড়িতে উঠবে অজিরা। বিমান বন্দরে অতিথিদের জন্য থাকছে বিশেষ ইমিগ্রশন ব্যবস্থা, আলাদাভাবে নেয়া হবে পাসপোর্ট। কাজ শেষে জীবাণুমুক্ত করার তিনদিন পর ফিরিয়ে দেয়া হবে পাসপোর্ট।

বিধি নিষেধের মধ্যে পড়ে যাচ্ছে ব্রডকাস্টাররা। প্রথা ভেঙ্গে মাঠের ভেতরে ক্যামেরার প্রবেশ নিষিদ্ধ করেছে কর্তৃপক্ষ। কোয়ারেন্টিন জটিলতার সিরিজে থাকছে না ডিসিশন রিভিউ সিস্টেম। প্রবেশাধিকার সীমিত করা হয়েছে আকসু সহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য কর্তৃপক্ষের।

প্রায় একই সময় জিম্বাবুয়ে থেকে দেশে ফেরা বাংলাদেশ দলও পড়ে যাচ্ছে কোয়ারেন্টিন কড়াকড়িতে। বাংলাদেশে অবস্থান করার ১৩ দিনে, কমপক্ষে ৭ বার কোভিড টেস্ট হবে ক্রিকেটারদের। বলয়ের মাঝে আলাদা বলয় মাঠকর্মীদের জন্য। খেলা চলাকালীন বাউন্ডারি লাইনের পাশেও থাকবে না মাঠকর্মীরা।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2017 Nagarkantha.com