মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২২, ০৪:২৪ অপরাহ্ন

শিরোনামঃ
বগুড়ায় রাইস ট্রান্সপ্লান্টারের মাধ্যমে ধানের চারা রোপণ কার্যক্রম উদ্বোধন ইসি গঠনে আইন প্রণয়ন, কমিশনকে শক্তিশালী ও প্রযুক্তিগত সহযোগিতা নিশ্চিত করাসহ বিভিন্ন প্রস্তাব আওয়ামী লীগের জুনিয়র গ্রেড কর্মকর্তাদের বেতন ৫০% পর্যন্ত বৃদ্ধি করেছে ব্র্যাক ব্যাংক ইসি গঠনে আইন ‘যেই লাউ সেই কদু’: বিএনপি আন্দোলনে ‘সংহতি’ জানাতে শাবি ক্যাম্পাসে আ. লীগ নেতারা ভার্চ্যুয়াল আদালতে ফেরার ইঙ্গিত প্রধান বিচারপতির প্রকল্প বাস্তবায়নে জেলা পর্যায়ে কমিটি করার দাবি, সায় নেই সরকারের দেশে করোনার ২০ শতাংশ রোগীই ওমিক্রনে আক্রান্ত টিকা না নিলে ফ্রেঞ্চ ওপেনেও খেলতে পারবেন না জকোভিচ আগামী মাসে সুইজারল্যান্ডের সাথে প্রীতি ম্যাচ খেলবে ইংল্যান্ড

পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসছে বিশাল আকারের গ্রহাণু

মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসার ‘সম্ভাব্য বিপজ্জনক’ তালিকা থেকে একটি বিশাল গ্রহাণু এই মাসের শেষের দিকে পৃথিবী অতিক্রম করবে। যা নিউইয়র্কের এম্পায়ার স্টেট বিল্ডিংয়ের আড়াই গুণ লম্বা। যার আনুমানিক ব্যাস কমপক্ষে এক কিলোমিটার। এটি আমাদের গ্রহে আঘাত করলে বিশ্বব্যাপী বিপর্যয় ঘটে যাবে। তবে তেমনটা হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম।

এটি পৃথিবী থেকে প্রায় ১.৯৮ মিলিয়ন কিলোমিটার দূর দিয়ে অতিক্রম করবে বলে আশা করা হচ্ছে, যা আমাদের গ্রহ এবং চাঁদের মধ্যকার দূরত্বের প্রায় পাঁচগুণ।

এটি পৃথিবীর চেয়ে বৃহত্তর কক্ষপথ সহ একটি অ্যাপোলো-শ্রেণীর গ্রহাণু। অস্ট্রেলিয়ান জ্যোতির্বিজ্ঞানী রবার্ট ম্যাকনট ১৯৯৪ সালে এটি আবিষ্কার করেন। এটি এক বছর সাত মাসে সূর্যের চারপাশে একবার ঘুরে আসে।

সূর্যকে প্রদক্ষিণকারী এই গ্রহাণূকে প্রতি ৪৭ বছর পর পর সবচেয়ে সাধারণ টেলিস্কোপ দিয়েই দেখা যায়। তবে পরের বার এটি পৃথিবীর এতো কাছাকাছি আসবে ২১০৫ সাল নাগাদ।

যারা স্টারগেজিংয়ের কথা ভাবছেন তাদের জন্য, এটি প্রতি সেকেন্ডে ১৯.৫৬ কিলোমিটার (ঘন্টায় ৭০৫১৫ কিলোমিটার) বেগে ভ্রমণ করবে এবং রাতের আকাশ জুড়ে একটি শুটিং তারার মতো দেখতে হবে।

তবে আমরা পৃথিবীবাসীরা আপাতত নিশ্চিন্তে ঘুমাতে পারি। কারণ নাসার সাম্প্রতিক বিশ্লেষণ অনুসারে মহাকাশ থেকে আসা বড় ধরনের কোনো গ্রহাণু বা পাথরের সঙ্গে আমাদের পৃথিবীর আগামী অন্তত আরও ১০০ বছর কোনো সংঘর্ষ হবে না।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2017 Nagarkantha.com