শুক্রবার, ১২ Jul ২০২৪, ০৪:৩৩ অপরাহ্ন

প্রতীক্ষার অবসান ঘটছে মিমের

পরাণ ও দামাল ছবির অভাবনীয় সাফল্যের পর চলতি বছরের শুরু থেকেই হ্যাটট্রিক সাফল্যের স্বপ্ন দেখে আসছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেত্রী বিদ্যা সিনহা মিম। এই দুই সিনেমা বিশেষ করে পরাণ-এর মাধ্যমে অনেক দিন পর সাফল্যের মুখ দেখেন এই লাক্স চ্যানেল আই সুপারস্টার। নির্মাতাদের পাশাপাশি পরাণের মাধ্যমে সিনেমা দিয়ে অনেকদিন পর রুপালি পর্দাও দর্শকের মধ্যে মুগ্ধতা ছড়ান তিনি।

এতে ‘অনন্যা’ চরিত্রে অভিনয়ের জন্য মিম দর্শক মহলে ব্যাপক প্রশংসা কুড়িয়েছেন। এর কিছুদিন পর অক্টোবরে মুক্তি পায় এই নায়িকার আরেক সিনেমা ‘দামাল’। এটিও বেশ সাড়া ফেলে দর্শক মহলে। এরপর মুক্তির তালিকায় থাকা দীপঙ্কর দীপনের তারকাবহুল সিনেমা ‘অন্তর্জাল’র মুক্তির মাধ্যমে সাফল্যের ধারাবাহিকতা রক্ষা করার স্বপ্ন বোনোন মনে। কিন্তু একবার নয়, বার বার সিনেমাটির মুক্তির তারিখ ঘোষিত হওয়ার পরও দফায় দফায় পিছিয়ে যায় সিনেমাটির মুক্তি।

এতে মিমও একাধিকবার আশাহত হন। সর্বশেষ চলতি মাসের ৮ তারিখে অন্তর্জালের মুক্তির ঘোষণা দেন ছবির পরিচালক দীপন। কিন্তু মুক্তির ঠিক তিনদিন আগে শোনা গেল বলিউড তারকা শাহরুখ খানের জাওয়ান সিনেমাটি বিশ্বের সঙ্গে একযোগে বাংলাদেশেও মুক্তি পাওয়ায় জরুরি সংবাদ সম্মেলন ডেকে অন্তর্জালের মুক্তি স্থগিত রাখার ঘোষণা দেয় ছবির টিম। এতে মানসিকভাবে পুরোপুরি হতাশ হয়ে পড়েছিলেন মিম। অভিমানে সংবাদ সম্মেলনেও যাবেন না বলে জানিয়ে দিয়ে এই তারকা বলেছিলেন, ‘ছবি যদি পিছিয়েই যায়, তাহলে সংবাদ সম্মেলন করে লাভ কী।’ যদিও সিনেমার টিমের অনুরোধে সেই সংবাদ সম্মেলনে হাজির হয়েছিলেন তিনি। ওই সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয় ২২ সেপ্টেম্বর নিশ্চিত মুক্তি পাচ্ছে অন্তর্জাল।

মিমের এই অভিমান থাকার যথেষ্ঠ কারণও আছে। এই ছবির জন্য নতুন কোনো নাটকে কাজ করেননি তিনি। এমনকি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে বার বার সিনেমাটি নিয়ে নিজের ব্যাপক প্রত্যাশার কথা ব্যক্ত করেছেন। তবে সর্বশেষ ঘোষণা অনুযায়ী আর মাত্র কয়েকদিন পরই (আগামী শুক্রবার) মুক্তি পাচ্ছে মিমের বহুল প্রত্যাশিত সিনেমাটি। এর মাধ্যমে তার অপেক্ষার প্রহর কেটে যাচ্ছে।

অন্তর্জালকে বলা হচ্ছে দেশের প্রথম সাইবার ক্রাইম থ্রিলার ধাঁচের ছবি। বিদ্যা সিনহা মিম বলেন, ‘এ ধরনের সিনেমা আগে কখনো হয়নি এদেশে। এটি ভিন্নধর্মী গল্পের সিনেমা। নতুন ভাবনার প্রতি, নতুন গল্পের প্রতি দর্শকদের আগ্রহ ও টান সবসময়ই আছে। অন্তর্জালের প্রতিও থাকবে।

দর্শকরা এটি হলে গিয়ে দেখবেন বলে আমার বিশ্বাস।’ এই নায়িকার ভাষ্য, মিম বলেন, ‘এ চলচ্চিত্রটি অন্য চলচ্চিত্রের মতো দুইজন নায়ক-নায়িকা নির্ভর না। এখানে প্রধান কয়েকটি চরিত্রের সব কটিই গুরুত্বপূর্ণ।

কোনোটির চেয়ে কোনোটি বেশি নয়। একসময় শাবানা-কবরী কিংবা ববিতা, রাজ্জাক-আলমগীর অথবা ফারুক একসঙ্গে একই চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। সেই সব চলচ্চিত্রে আমরা প্রধান নায়ক-নায়িকা হিসেবে কোনো জুটিকে ভাবতে পারতাম না। গল্পটাও তেমন ছিল। সবাই অভিনয় গুণে প্রশংসিত হয়েছেন। এখন আমরা সেইভাবে ভাবতে পারি না। আসলে আমাদের চিন্তাটা হয়ে গেছে দুইজন নায়ক-নায়িকানির্ভর। অভিনয় ও চরিত্রের গুরুত্ব বুঝি না। ‘চরিত্র ও গল্প নির্বাচনে আমি খুব সচেতন। দর্শকদের জন্যই আমি মিম। তাই এমন কোনো গল্প ও চরিত্রে অভিনয় করেত চাই না যাতে দর্শকরা হতাশ হন।

‘অন্তর্জাল’ সিনেমার গল্প ও চরিত্র ভিন্নধর্মী। সিনেমাটি মুক্তি পেলে সবাই পছন্দ করবেন, এতটুকু বিশ্বাস।’

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2017 Nagarkantha.com