শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ১০:০৩ পূর্বাহ্ন

সেমিকন্ডাক্টর খাতে ১ হাজার কোটি ডলার বিনিয়োগ করবে নিউইয়র্ক

পাবলিক-প্রাইভেট পার্টনারশিপের (পিপিপি) আওতায় ১ হাজার কোটি ডলার বিনিয়োগে নতুন পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্য। চিপ উৎপাদনে অন্যতম কেন্দ্রে পরিণত হতে সেমিকন্ডাক্টর গবেষণা ও উন্নয়ন কেন্দ্র স্থাপন করবে অঙ্গরাজ্যটি। সম্প্রতি নিউইয়র্কের গভর্নর ক্যাথি হোচুল এ ঘোষণা দেন। খবর রয়টার্স ও কোস্টার।

প্রকল্প বাস্তবায়নে আইবিএম, মাইক্রনসহ চিপ খাতের শীর্ষ প্রতিষ্ঠানগুলো কাজ করবে। বিবৃতিতে ক্যাথি হোচুল জানান, এ প্রকল্প বাস্তবায়নে নিউইয়র্ক প্রশাসন ১০০ কোটি ডলার বিনিয়োগ করবে এবং প্রযুক্তি কোম্পানিগুলোর সঙ্গে একত্রে কাজ করবে। এ গবেষণা ও উন্নয়ন কেন্দ্রে ৭০০-এর বেশি নতুন কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি হবে এবং ব্যক্তিমালিকানার মাধ্যমে আরো ৯০০ কোটি ডলার বিনিয়োগের ব্যবস্থা করবে।

বিবৃতির তথ্যানুযায়ী, আলবানি বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে অবস্থিত আলবানি ন্যানোটেক কমপ্লেক্সে পরবর্তী প্রজন্মের সেমিকন্ডাক্টর রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট সেন্টারটি নির্মাণ হবে। এটি প্রায় ১৬ লাখ ৫০ হাজার বর্গফুটের একটি কমপ্লেক্স। এনওয়াই ক্রিয়েটস (নিউইয়র্ক সেন্টার ফর রিসার্চ, ইকোনমিক অ্যাডভান্সমেন্ট, টেকনোলজি, ইঞ্জিনিয়ারিং ও সায়েন্স) নামের অলাভজনক প্রতিষ্ঠান এ কমপ্লেক্সের সার্বিক দেখভাল করছে। পাশাপাশি এটি নতুন গবেষণা ও উন্নয়ন কেন্দ্রের নির্মাণ থেকে চিপ তৈরিতে ব্যবহৃত যন্ত্রাংশ বসানোর কাজও পর্যবেক্ষণ করবে। নেদারল্যান্ডসের কোম্পানি এএসএমএল হোল্ডিংয়ের কাছ থেকে এসব যন্ত্রাংশ কেনা হয়েছে।

গত বছর যুক্তরাষ্ট্রের চিপ উৎপাদন খাতের উন্নয়নে ৫ হাজার ৩০০ কোটি ডলারের একটি বিল পাস হয়। এতে মার্কিন কংগ্রেসের ডেমোক্রেট ও রিপাবলিকান উভয় দলের জনপ্রতিনিধিরা সমর্থন দিয়েছেন।

ফেডারেল চিপ ও সায়েন্স অ্যাক্টের অধীনে নিউ ইয়র্ক অঙ্গরাজ্য মাইক্রো চিপের উৎপাদন বাড়ানোর পাশাপাশি গবেষণা কেন্দ্র স্থাপনে এ উদ্যোগ নিয়েছে।

এনওয়াই ক্রিয়েটসের প্রেসিডেন্ট ডেভিড অ্যান্ডারসন বলেন, ‘অর্থনৈতিক উন্নয়নের প্রতি আমাদের মনোযোগ রয়েছে। নতুন প্রকল্পের মাধ্যমে উত্তর-পূর্ব অঞ্চলের পাশাপাশি পুরো দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে কাজ করা হবে।’

নিউইয়র্ক এরই মধ্যে চিপ উৎপাদনকে অঙ্গরাজ্যের জন্য গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হিসেবে উপস্থাপন করেছে। চলতি বছরের জানুয়ারিতে সেমিকন্ডাক্টরের বিস্তৃতি, উৎপাদন ও ইন্টিগ্রেশনের জন্য গভর্নর অফিস তৈরির ঘোষণা দিয়েছিলেন গভর্নর ক্যাথি হোচুল। এতে সাড়ে ৪ কোটি ডলার ব্যয় হবে।

গত বছর মাইক্রন ১০ হাজার কোটি ডলার বিনিয়োগে কারখানা চালু করেছে। এক বিবৃতিতে সিনেটর কার্স্টেন গিলিব্র্যান্ড বলেন, ‘আলবানি ন্যানোটেক নতুন এ বিনিয়োগ সেমিকন্ডাক্টর নিয়ে গবেষণা ও উন্নয়ন খাতে নেতৃস্থানীয় অবস্থান তৈরিতে নিউইয়র্ককে সহায়তা করবে।’ তিনি আরো বলেন, ‘নতুন সেমিকন্ডাক্টর সেন্টার স্থাপনের মাধ্যমে জাতীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরো মজবুত হবে এবং নিজ দেশেই শক্তিশালী ও অধিক কার্যকর সেমিকন্ডাক্টর তৈরি করতে পারবে যুক্তরাষ্ট্র।’

চিপ উৎপাদন নিয়ে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বাণিজ্য যুদ্ধ সাম্প্রতিক বছরগুলোয় নীতিনির্ধারণ ও আলোচনার অন্যতম কেন্দ্রে পরিণত হয়েছে। বিশ্বের অন্যান্য দেশের কাছে কী ধরনের চিপ বিক্রি করা হবে সে বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা প্রভাব ফেলছে। অন্যদিকে জুলাইয়ে চিপ উৎপাদনে ব্যবহৃত জার্মেনিয়াম ও গ্যালিয়াম রফতানি বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে চীন। এছাড়া গত বছর প্রযুক্তি খাতে প্রবেশ করা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার (এআই) কারণে সেমিকন্ডাক্টরের বাজারে বিরূপ প্রভাব পড়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2017 Nagarkantha.com