শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ০৯:৫৪ পূর্বাহ্ন

একত্রে কাজ করবে আইবিএম মেটাসহ অর্ধশতাধিক প্রতিষ্ঠান

আইবিএম ও মেটাসহ ৫০টিরও বেশি কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (এআই) সংস্থা এবং গবেষণা প্রতিষ্ঠান জোট তৈরিতে সম্মত হয়েছে। এ জোটের মূল লক্ষ্য, এআইয়ের একটি ‌উন্মুক্ত”মডেলের বিকাশ ঘটানো। পাশাপাশি মুক্ত উদ্ভাবনী প্রযুক্তি ও প্রযুক্তি বিজ্ঞানের ওপর জোর দেয়া। এআই জোট সদস্যদের মধ্যে রয়েছে ইন্টেল, ওরাকল, কর্নেল বিশ্ববিদ্যালয় এবং ন্যাশনাল সায়েন্স ফাউন্ডেশন। খবর ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল।

আইবিএম ও মেটার তৈরি জোটটি এআইয়ের ক্ষেত্রে ওপেন সোর্স পদ্ধতি অবলম্বন সম্প্রসারিত করতে চায়। মূলত ওপেন সোর্স পদ্ধতিতে সোর্স কোড সম্পূর্ণ উন্মুক্ত থাকে। সোর্স কোড বলতে কোনো প্রোগ্রাম বা সফটওয়্যার তৈরির জন্য যে প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ ব্যবহার করে কোড লেখা হয় সেটাকে বোঝায়। প্রতিটি প্রোগ্রামের সোর্স কোড থাকে তবে ওপেন সোর্স প্রোগ্রামের ক্ষেত্রে সোর্স কোডটি উন্মুক্ত থাকে। যদি কোনো প্রোগ্রাম ওপেন সোর্স লাইসেন্স থাকে তাহলে সেটি যেকোনো ইউজার ফ্রিতে ডাউনলোড করতে পারবেন, সঙ্গে মডিফাই করতে পারবেন।

ইন্টেল, ওরাকল, কর্নেল এবং ন্যাশনাল সায়েন্স ফাউন্ডেশনের মতো সদস্যরা ওপেন সোর্স এআই সমর্থন করে। এছাড়া ওপেন সোর্স প্রোগ্রামে বড় প্রযুক্তি কোম্পানি, একাডেমিক এবং স্বাধীন প্রোগ্রামারদের মধ্যে সহযোগিতার ইতিহাস রয়েছে। এ পদক্ষেপটিকে গত এক বছর এআইয়ের প্রতিনিধিত্বের অভাব বিষয়ক অসন্তোষজনক যে বিতর্ক চলছে তার সমাধান হিসেবে চিহ্নিত করেছে আইবিএম। আইবিএম চলতি বছরের আগস্ট থেকে মেটার সঙ্গে কম জনপ্রিয় প্রতিষ্ঠানগুলোকে এক করার জন্য কাজ করে আসছে। গত বছর চ্যাটজিপিটি চালুর পর থেকে প্রযুক্তির খবরে আধিপত্য তৈরি করেছে প্লাটফর্মটি।

ওপেনএআইয়ের চ্যাটজিপিটি ও তার প্রতিযোগী চ্যাট মডেল অ্যানথ্রোপিক এবং কোহেয়ার মতো এআই মডেলগুলোর সোর্স কোড উন্মুক্ত নয়। যেহেতু কোম্পানির মালিকানাধীন এআই মডেল সিস্টেম, তাই এগুলো ব্যবহারে অর্থ প্রদানের প্রয়োজন পড়ে। এআই জোটের সদস্যরা দ্রুত বর্ধনশীল এআই বাজারে কার্যকর ওপেনএআইয়ের বিকল্প তৈরির চেষ্টা করছে। গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইন্টারন্যাশনাল ডাটা করপোরেশনের পূর্বাভাস অনুযায়ী, ২০২৭ সালের মধ্যে বিশ্বব্যাপী এন্টারপ্রাইজগুলো শুধু জেনারেটিভ এআই সলিউশনের জন্য প্রায় ১ হাজার ৬০০ কোটি ডলার ব্যয় করবে। ২০২৩ থেকে ২০২৭ সাল পর্যন্ত চার বছরের মধ্যে জেনারেটিভ এআইয়ের চক্রাকার বার্ষিক প্রবৃদ্ধির হার বিশ্বব্যাপী ব্যয়ের প্রায় ১৩ গুণ হবে।

আইবিএমের ওয়াটসন এআইস সিস্টেম (আইবিএমের এআই) কাঙ্ক্ষিত সফলতা অর্জন করতে পারেনি। ভাইস প্রেসিডেন্ট দারিও গিল জানান, তাদের নতুন ওয়াটসনএক্স সিস্টেমটি সম্পূর্ণ নতুন প্লাটফর্ম তৈরি করবে। আইবিএমের মতো মেটাও নিজস্ব এআই মডেল তৈরি করেছে। মেটার তৈরি লামা ২ এআইটি ওপেন সোর্স পদ্ধতিতে পরিচালিত হচ্ছে। গত বছর নভেম্বরের শেষের দিকে ওপেনএআইয়ের উত্থান হয়। এরপর থেকে একটি এআই সেবা প্রদানকারীর সঙ্গে কাজ করার ক্ষেত্রে ঝুঁকি তৈরি হচ্ছিল। এ ঝুঁকি হ্রাসে বিকল্প এআই সিস্টেম খুঁজছিল কোম্পানিগুলো। আইবিএমের ভাইস প্রেসিডেন্ট দারিও গিল জানান, এআইয়ের ক্ষেত্রে বিকল্প প্লাটফর্ম তৈরির বার্তাটি আবারো সামনে এনেছে নতুন জোট। তারা মূলত এআইয়ের নিয়ন্ত্রণ ও সুরক্ষাসহ ছয়টি মূল ক্ষেত্রে মনোনিবেশ করছে। জোটটি এআইয়ের সুরক্ষা ও মডেলের বৈধতাদানে একটি বেঞ্চমার্কিং টুল প্রকাশ করার পরিকল্পনা করছে। বেঞ্চমার্কিং টুলের মাধ্যমে বিদ্যমান বিভিন্ন কোম্পানির পরিষেবা বা পণ্যের সক্ষমতা পরিমাপ করা হয়।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2017 Nagarkantha.com