একটি শহরই চাই, যেখানে ভেদাভেদ থাকবে না

একটি শহরই চাই, যেখানে ভেদাভেদ থাকবে না

0

নিজস্ব প্রতিবেদক, নগরকন্ঠ.কম : ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেছেন, আমরা এমন একটি শহর চাই, যেখানে কোনো ভেদাভেদ থাকবে না। সমাজে ধনী-গরিব, নারী-পুরুষ, ছেলে-মেয়ে, শিশু-বয়স্ক সবার অংশগ্রহণ থাকতে হবে। কেউ পাবে কেউ পাবে না, কারো সুযোগ থাকবে কারো থাকবে না সেটি হবে না।

শুক্রবার গুলশান-২ নম্বরের ৬০, ৬১ ও ৬২ নম্বর সড়কের বাসিন্দাদের নিয়ে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের সার্বিক সহযোগিতায় ও গুলশান সোসাইটির আয়োজনে দিনব্যাপী প্রতিবেশীদের মধ্যে আন্তব্যক্তি ও পারিবারিক, সামাজিক সম্পর্ক সুদৃঢ় করতে আয়োজিত ‘পাড়া উৎসব’ অনুষ্ঠানের উদ্বোধনকালে তিনি এ কথা বলেন।

আতিকুল ইসলাম বলেন, প্রতিবেশীদের মধ্যে সম্পর্ক উন্নয়ন ও সামাজিক বন্ধন দৃঢ় করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে এই পাড়া উৎসব। আমাদের শিশুরা খেলার সুযোগ পাচ্ছে না। তাদের বন্ধু হচ্ছে না। তারা কম্পিউটার আর বইয়ে ডুবে থাকে। এভাবে চলতে থাকলে তারা বিষণ্ণতায় ভুগবে। সেটি আমরা মেনে নিতে পারি না। আরো আশঙ্কার বিষয় হলো খেলাধুলা ও সামাজিক মেলামেশার অভাবে আমাদের এই তরুণ প্রজন্মের মাদকাসক্ত ও নেশাগ্রস্ত হয়ে পরার সম্ভাবনা থাকে। আমরা অবশ্যই এটি চাই না। আর সেজন্যই আমাদের এই উদ‌্যোগ। আমরা চাই এলাকাবাসী সবাই আজ সারাদিন এই উৎসব উপভোগ করবেন, পরিবার নিয়ে রাস্তায় আসবেন, নিজের প্রতিবেশীদের চিনবেন, সামাজিক সম্পর্ক দৃঢ় হবে, নিজ এলাকা ও প্রতিবেশীর জন্য নিজেদের মধ্যে দায়িত্বশীলতা বাড়বে। আর এতে করে সামাজিক অন্যায়, অবিচার, অস্থিরতা কমে আসবে। এভাবেই আমরা সবাই মিলে সবার ঢাকা গড়ে তুলতে চাই।

আতিকুল ইসলাম বলেন, আমরা চাই বাবা-মা রা তাদের সন্তানদের নিয়ে, দাদা-দাদী, নানা-নানীরা তাদের নাতি নাতনিদের নিয়ে নেমে আসবে, সারাদিন গল্প, খেলা, আড্ডায় তারা মানসিকভাবে বিকশিত হবে, তাদের বন্ধুত্ব হবে, তারা একসাথে মিলেমিশে একে অন্যের এবং এই এলাকার উন্নয়নে কাজ করবে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত রবার্ট মিলার, সংসদ সদস্য সালমান এফ রহমান, সংসদ সদস্য নাহিদ এজহার খান প্রমুখ।

নগরকন্ঠ.কম/এআর

কোন কমেন্ট নেই

উত্তর দিন