গ্রেনেড হামলা মামলার পেপারবুক প্রস্তুত, আপিল শুনানির অপেক্ষা

গ্রেনেড হামলা মামলার পেপারবুক প্রস্তুত, আপিল শুনানির অপেক্ষা

0

নিজস্ব প্রতিবেদক, নগরকন্ঠ.কম : বহুল আলোচিত ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার ডেথ রেফারেন্স ও আসামিদের আপিল শিগগিরই শুরু হতে যাচ্ছে। এরই মধ্যে এই মামলার আপিল ও ডেথ রেফারেন্স শুনানির জন্য পেপারবুক প্রস্তুত হয়ে হাইকোর্টের প্রশাসনিক দপ্তরে গেছে। পেপারবুক যাচাই-বাছাই সহ সব প্রস্তুতি শেষে প্রধান বিচারপতি শুনানির জন্য হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ নির্ধারণ করে দিবেন বলে জানা গেছে।

বৃহস্পতিবার (২০ আগস্ট) সুপ্রিম কোর্টের স্পেশাল অফিসার মোহাম্মদ সাইফুর রহমান রাইজিংবিডিকে বলেন, ২১ আগস্ট হত্যা মামলায় ১৩ ভলিউমে মোট ৫৮৫টি পেপারে বুক এসেছে, যা সাড়ে দশ হাজার পৃষ্ঠা। পেপার বুক যাচাই-বাছাইয়ের কাজ চলছে। সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করে প্রধান বিচারপতির কাছে উপস্থাপন করা হবে।

সাইফুর রহমান জানান, আপিল শুনানিতে এ মামলায় পলাতক আসামিদের জন্য স্ট্যাট ডিফেন্স লয়ার (State Defence Lawyer) নিয়োগ করা হবে।

উচ্চ আদালতে মামলাটি অগ্রাধিকার ভিত্তিতে শুনানি প্রসঙ্গে রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তা অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, প্রথমে আমাদের একটি দরখাস্ত করতে হবে, এই মামলাটি দ্রুত শুনানির জন্য কোনো একটি বেঞ্চে পাঠিয়ে দিতে। এটা আলোচিত মামলা। উচ্চ আদালতে মামলাটির শুনানি অগ্রাধিকার ভিত্তিতে হবে এটা আমরা মনে করি এবং সে বিষয়ে আদালতের কাছে প্রার্থনা করবো।

মামলায় তারেক রহমানের সাজা বাড়ানোর আবেদন করা হবে কি না-এ প্রশ্নের জবাবে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, সাধারণত নিচের কোর্টে যদি যাবজ্জীবন দণ্ড হয় সেক্ষেত্রে উচ্চ আদালতে ফাঁসির জন্য আপিল করে কোনো লাভ হয় না। কাজেই এ ব্যাপারে যে সাজাটা আছে সেটি যেন বহাল থাকে এটাই আমাদের প্রচেষ্টা থাকবে।

২০১৮ সালের ১০ অক্টোবর বহুল আলোচিত ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা ও হত্যা মামলায় সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর, সাবেক উপমন্ত্রী আব্দুস সালাম পিন্টুসহ ১৯ জনকে ফাঁসি ও বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান, বেগম খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরী, বিএনপি নেতা কাজী শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন কায়কোবাদসহ ১৯ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন বিচারিক আদালত।

একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলার ঘটনায় দায়ের হওয়া দুই মামলার রায়সহ প্রায় ৩৭ হাজার তিনশ ৮৫ পাতার নথি ২০১৮ সালের ২৭ নভেম্বর হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় এসে পৌঁছায়। পরে আসামিদের ডেথ রেফারেন্স ও আপিলের শুনানির জন্য মামলার পেপারবুক তৈরির নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। সেই আদেশের ধারাবাহিকতায় এই পেপারবুক প্রস্তুত সম্পন্ন হয়েছে।

আসামিদের মধ্যে ২২ জন খালাস চেয়ে আপিল করেছেন। অন্যদিকে ১২ জন আসামির জেল আপিল দায়ের হয়েছে।

নগরকন্ঠ.কম/এআর

কোন কমেন্ট নেই

উত্তর দিন