শুক্রবার, ১৮ Jun ২০২১, ০৮:৪৬ পূর্বাহ্ন

এসএমই ফাউন্ডেশনকে প্রকল্প বাস্তবায়নের সুযোগ দেয়া প্রয়োজন : পরিকল্পনামন্ত্রী

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, উদ্যোক্তাদের ঋণের ব্যবস্থা এবং তাদের দক্ষতার উন্নয়নে এসএমই ফাউন্ডেশনের আর্থিক সক্ষমতা বৃদ্ধি ও প্রকল্প বাস্তবায়নের সুযোগ দেয়ার প্রয়োজন।
রোববার সিএমএসএমই এবং অনানুষ্ঠানিক খাতের চ্যালেঞ্জ বিষয়ক এক প্রাক বাজেট ওয়েবিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। এসএমই ফাউন্ডেশন এবং অ্যাসোসিয়েশন অব ফ্যাশন ডিজাইনার্স বাংলাদেশ (এএফডিবি) যৌথভাবে ওয়েবিনারের আয়োজন করে।
এসএমই ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মো. মফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার। সম্মানিত অতিথি ছিলেন সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ও ইউএনডিপির বাংলাদেশের আবাসিক প্রতিনিধি সুদীপ্ত মুখার্জি।
অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সিপিডির ড. ফাহমিদা খাতুন। আলোচনা করেন সোনিয়া বশীর কবির এবং বিবি রাসেল। এসএমই ফাউন্ডেশনের মহাব্যবস্থাপক ফারজানা খান ওয়েবিনার সঞ্চালনা করেন এবং স্বাগত বক্তব্য দেন এএফডিবির সভাপতি মানতাশা আহমেদ।
পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, এসএমইখাতের উন্নয়নে জেলা, উপজেলা, গ্রোথ সেন্টার ও ক্লাস্টারসমূহের উদ্যোক্তাদের দক্ষতা বাড়ানোর প্রয়োজন। সেজন্য এসএমই ফাউন্ডেশনের তত্ত্বাবধানে সরকারি-বেসরকারি সংস্থা তাদের জন্য ঋণ ও অনুদানের ব্যবস্থা করতে পারে। তিনি এসএমইখাতের উন্নয়নে এসএমই ফাউন্ডেশনকে প্রকল্প বাস্তবায়নের সুযোগদানের পক্ষে মত দেন।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার বলেন, করোনাভাইরাস অতিমারির সময় এসএমই উদ্যোক্তারদের যেন ঋণ পেতে সমস্যা না হয়, সেজন্য ক্রেডিট গ্যারান্টি স্কিম চালু করেছে সরকার। এর পাশাপাশি অনানুষ্ঠানিক খাতের দক্ষতা বাড়াতে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অধীনে কাজ করছে জাতীয় দক্ষতা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ।
তিনি আরও বলেন, ট্রেড লাইসেন্স না থাকায় অনেকের ব্যাংক ঋণ পেতে সমস্যা হচ্ছে। এজন্য আগামী বাজেটে সেসব উদ্যোক্তাদের জন্য বিশেষ বরাদ্দ রাখার দাবি করেন তিনি। এসএমই ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনায় এসএমই উদ্যোক্তাদের জন্য জেলায় জেলায় এসএমই পল্লী স্থাপন করা যেতে পারে বলেও মত দেন তিনি।
ওয়েবিনারে মূল প্রবন্ধে ড. ফাহমিদা খাতুন বলেন, করোনাভাইরাসের ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে দেশের এসএমই ও নারী উদ্যোক্তাদের জন্য বাজেটে বিশেষ প্রণোদনা সহায়তা দেয়া যেতে পারে। করোনাভাইরাসের কারণে সিএমএসএমই উদ্যোক্তাদের ক্ষতি নিয়ে একটি জরিপের তথ্য তুলে ধরে তিনি বলেন, দেশের বেশিরভাগ সিএমএসএমই উদ্যোক্তা করোনাভাইরাসের ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে সরকার ঘোষিত প্রণোদনার সুফল পাননি। তাই প্রণোদনা প্যাকেজ দ্রুত বিতরণ শেষ করার প্রয়োজন।
এসএমই ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মো. মফিজুর রহমান এসএমই উদ্যোক্তা উন্নয়নে আগামী বাজেটে নীতি সহায়তা ও বরাদ্দ বাড়ানোর সুপারিশ করেন।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2017 Nagarkantha.com