শুক্রবার, ১৮ Jun ২০২১, ০৮:৪৪ পূর্বাহ্ন

প্রান্তিক জনগোষ্ঠির অর্থনীতি সচল থাকলে অর্থনৈতিক উন্নয়নের পাশাপাশি কর্মসংস্থানও বৃদ্ধি পাবে : শিল্পমন্ত্রী

শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন বলেছেন, প্রান্তিক জনগোষ্ঠির অর্থনীতি সচল থাকলে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের পাশাপাশি কর্মসংস্থানও বৃদ্ধি পাবে।
তিনি বলেন, তৃণমূল উদ্যোক্তারা যেভাবে অর্থনীতিকে সচল রেখেছে,তাতে করোনা মহামারীর মধ্যেও জীবন ও জীবিকা চলমান রয়েছে।
নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন আজ বৃহম্পতিবার রাজধানীর মতিঝিলস্থ শিল্পভবন (শিল্পমন্ত্রণালয়) মিলনায়তনে এসএমই ফাউন্ডেশনের ‘ক্রেডিট হোল সেলিং’ ঋণ কর্মসূচির উদ্বোধন ও ঋণের চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন।
করোনা মহামারির কারণে ক্ষতিগ্রস্থ গ্রামীণ অর্থনীতি পুনরুদ্ধার এবং পল্লী এলাকার প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নে কুটির,মাইক্রো,ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের জন্য প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত দ্বিতীয় দফা প্রণোদনার আওতায় এসএমই ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে যথাযথ স্বাস্থ্য-বিধি মেনে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার এমপি ও শিল্পসচিব জাকিয়া সুলতানা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন।
এসএমই ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মো: মফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে ব্যাংক এশিয়ার প্রেসিডেন্ট ও ব্যবস্থাপনা পরচিালক মোঃ আরফান আলী এবং উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোঃ জিয়াউল হাসান মোল্লা বক্তৃতা করেন।
ব্যাংক এশিয়া ও এসএমই ফাউন্ডেশনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
শিল্পমন্ত্রী বলেন, প্রণোদনা প্যাকেজের ঋণ প্রদানে যাচাই-বাছাইয়ের ক্ষেত্রে সতর্ক থাকতে হবে।
করোনা মহামারীর মধ্যেও জাতীয় অর্থনীতি সচল রাখতে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় কোভিড-১৯’র প্রথম ঢেউ যেভাবে মোকাবেলা করা হয়েছে,সেভাবেই আমরা দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলা করতে সক্ষম হচ্ছি। এছাড়াও তৃতীয় বিশ্বের উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে বাংলাদেশই প্রথম করোনা ভারাইস প্রতিরোধে টিকা প্রদানে সক্ষম হয়েছে এবং এই টিকা তৃণমূল পর্যায়ে পৌঁছে দিতেও আমরা সফল হয়েছি।’
শিল্প প্রতিমন্ত্রী বলেন, যারা সত্যিকার অর্থে প্রণোদনা পাওয়ার যোগ্য,তারাই যেন প্রণোদনা ঋণ পায়।
ঋণ নিতে গিয়ে উদ্যোক্তাদের যেন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কাছ থেকে অযথা হয়রানীর কবলে পড়তে না হয়-সেব্যাপারেও সংশ্লিষ্ট সকলকে সতর্ক থাকতে হবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।
শিল্পসচিব প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ প্রণোদনা প্যাকেজের ঋণ প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে বিতরণের ওপর গুরুত্ব আরোপ করে বলেন, বিশেষ করে প্রান্তিক পর্যায়ে নারী ও শারীরিকভাবে অক্ষম উদ্যোক্তাদের জন্য সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে এ ঋণ বিতরণ করতে হবে। তৃণমূল-উদ্যোক্তারা উপকৃত হলেই এসএমই খাতের প্রকৃত উন্নয়ন বৃদ্ধি পাবে বলেও শিল্প সচিব উল্লেখ করেন।
এ অনুষ্ঠানে ব্যাংক এশিয়ার পক্ষ থেকে ২জন নারীসহ মোট ৮জন উদ্যোক্তার মাঝে ৬৩ লাখ ৯০ হাজার টাকার চেক বিতরণ করা হয়।
উল্লেখ, প্রণোদনা প্যাকেজের আওতায় উদ্যোক্তারা শতকরা ৪ ভাগ সুদে ঋণ নিতে পারবেন। গ্রাহক পর্যায়ে ঋণের পরিমাণ হবে সর্বনিম্ন ১ লাখ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ৭৫ লাখ টাকা পর্যন্ত। ব্যাংকার ও ঋণ-গ্রহণকারির সম্পর্কের ভিত্তিতে সর্বোচ্চ ২৪টি সমান মাসিক কিস্তিতে ঋণের টাকা পরিশোধ করা যাবে।
এসএমই ফাউন্ডেশনের অনুকুলে বরাদ্দকৃত ৩শ’ কোটি টাকার মধ্যে চলতি অর্থবছরে ১শ’ কোটি টাকা এবং আগামী অর্থবছরে ২শ’ কোটি টাকা বিতরণ করা হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2017 Nagarkantha.com