শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:৪৬ পূর্বাহ্ন

শিরোনামঃ
ইন্টারনেট নির্ভরতা যতো বেশি তৈরী হচ্ছে , ডিজিটাল অপরাধ ততো বেশি বাড়ছে : টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী সৌর বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র : সমৃদ্ধির পথে তিস্তার চরাঞ্চল রাঙ্গামাটিতে হাইফ্লো অক্সিজেন সাপোর্ট ও করোনা ইউনিটের উদ্বোধন পিছিয়ে পড়েও লিড নিলো বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল টাস্কফোর্সের সভা : শিল্প মন্ত্রণালয়ের অধীনে চামড়া শিল্প কর্তৃপক্ষ নামে নতুন কর্তৃপক্ষ গঠনের প্রস্তাব যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে শুল্কমুক্ত প্রবেশাধিকার চায় ঢাকা বাংলাদেশ ও শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রশংসায় জাতিসংঘ মহাসচিব দেশের মানুষ ভালো আছে বলেই বিএনপি ভালো নেই: ওবায়দুল কাদের জনগণের ভোট ও রায়ের ওপর নির্ভরকারীদের জন্য নির্বাচন বর্জন আত্মহননমূলক: তথ্যমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল : পরিকল্পনামন্ত্রী

বিরক্তিকর কোয়ারেন্টিনে থেকে ঢাকার ফাঁকা রাস্তায় তাকিয়ে সৌম্য

অস্ট্রেলিয়া সিরিজ উপলক্ষে চলছে দুই দলের কোয়ারেন্টিনে থাকার পালা। সদ্য জিম্বাবুয়ে সফর শেষ করে দেশে ফিরে ফের কোয়ারেন্টিনে ঢুকেছে বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। সিরিজ শেষ করার আগ পর্যন্ত পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করার কোনো সুযোগ নেই। অজিরাও তাই। উইন্ডিজ থেকে সরাসরি উড়ে বাংলাদেশে এসে হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে কোয়ারেন্টিন শুরু করেছে। এই জীবন আর কতই সহ্য হয়!

করোনাভাইরাসের কারণে গত বছর বেশ কয়েকমাস ক্রিকেট বন্ধ ছিল। এরপর কোয়ারেন্টিন, বায়ো-বাবল, ইত্যাদি নিয়মের বেড়াজালে শুরু হয় ক্রিকেট। করোনাকালের ক্রিকেট মানেই কোয়ারেন্টিন, দফায় দফায় করোনা পরীক্ষা, দীর্ঘদিন পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন থাকা, দর্শকবিহীন মাঠ। এ কারণে অনেক দেশের ক্রিকেটাররা একটা সিরিজ খেললে আরেকটা থেকে ছুটি নেন। কোয়ারেন্টিনের অলস সময় কাটানোর উপায় এখন ক্রিকেটাররা জানেন।

তাই বলে মাসের পর মাস এভাবে থাকলে কি আর ভালো লাগে? হার্ডহিটিং ওপেনার সৌম্য সরকারও দলের সঙ্গে হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে কোয়ারেন্টিনে আছেন। সোশ্যার সাইটে তার পোস্ট করা ছবিতে দেখা যায়, তিনি চায়ের কাপ হাতে হোটেলের বারান্দায় বসে লকডাউনে শূন্য রাস্তার দিকে তাকিয়ে আছেন। ক্যাপশনে লেখা, ‘কোয়ারেন্টিন-বায়ো বাবল-খেলা-পুনরাবৃত্তি। এটা খুব কঠিন, কিন্তু এটাই হয়তো নতুন স্বাভাবিক জীবন! অস্ট্রেলিয়া সিরিজের দিকে তাকিয়ে আছি।’

সদ্য সমাপ্ত জিম্বাবুয়ে সিরিজে ভালো করেছেন দারুণ ফর্মে থাকা সৌম্য। ওপেনিংয়ে সুযোগ পেয়ে দুটি ফিফটিও করেছেন। যা দলের জন্য অতি প্রয়োজনীয় ছিল। তিনি এবং নাঈম মিলে টি-টোয়েন্টিতে দেশের হয়ে সর্বোচ্চ রানের ওপেনিং জুটি গড়েছেন। জিম্বাবুয়ে সিরিজে তার সুযোগ হয়েছিল তামিম ইকবাল আর লিটন দাসের ইনজুরির কারণে। অস্ট্রেলিয়া সিরিজেও তার ওপেন করা নিশ্চিত। আর সৌম্যর জন্য এটা বড় সুযোগ আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে নিজের ধারাবাহিকতা ধরে রাখার।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2017 Nagarkantha.com