মাদক ব্যবসার প্রতিবাদ করায় স্কুলছাত্রের আঙ্গুল কর্তন!

মাদক ব্যবসার প্রতিবাদ করায় স্কুলছাত্রের আঙ্গুল কর্তন!

0

নিজস্ব প্রতিবেদক, নগরকন্ঠ.কম : গাজীপুরের কালিয়াকৈরে মাদক ব্যবসায় বাধা দেওয়া সাজিদুল ইসলাম নামের এক স্কুলছাত্রের হাতের দুটি আঙ্গুল কেটে ফেলার অভিযোগ পাওয়া গেছে মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে। এঘটনায় আহত ওই স্কুল ছাত্র বাদী হয়ে কালিয়াকৈর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে। মামলার প্রেক্ষিতে পুলিশ নিরব নামের একজনকে গ্রেপ্তার করে মঙ্গলবার আদালতের মাধ্যমে গাজীপুর জেল হাজতে পাঠিয়েছে।

আহত স্কুলছাত্র সাজিদুল ইসলাম পরান কালিয়াকৈর উপজেলার রাখালিয়াচালা এলাকার দেলোয়ার হোসেনের ছেলে। সে স্থানীয় একটি স্কুল থেকে এবার এসএসসি পরিক্ষার্থী।

থানায় দায়ের করা মামলা সূত্রে জানা যায়, কালিয়াকৈর উপজেলার ধোপাচালা ও রাখালিয়াচালা এলাকায় মাদক ব্যবসায় বাধা দেওয়া এবং মাদকের বিরুদ্ধে কথা বলায় পরানকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে আসছিল মাদক কারবারীরা। এলাকার মাদক বিরোধী কমিটির হয়েও কাজ করছিল পরান। গতকাল সোমবার দুপুরে উপজেলার ধোপাচালা এলাকায় দা, চাপাতি, লাঠি, রড নিয়ে স্কুলছাত্র সাজিদুল ইসলাম পরানের উপর দলবল নিয়ে হামলা চালায় মাদক কারবারি নিরব হোসেন। হামলার একপর্যায়ে কুপিয়ে সাজিদুলের হাতের দুইটি আঙ্গুল কেটে বিচ্ছিন্ন করে ফেলে তারা। এসময় আরো দুটি আঙ্গুলের অর্ধেক অংশ কেটে যায়। এসময় তার নিকট থেকে ১৮ হাজার টাকা মূল্যের মোবাইল ফোন নিয়ে নেয় হামলাকারীরা। পরে তার ডাকচিৎকারে লোকজন এগিয়ে আসলে তারা তাকে খুন করার হুমকি দিয়ে চলে যায়। স্থানীয়রা তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।

এঘটনায় আহত সাজিদুল ইসলাম পরান বাদী হয়ে ওইদিন রাতে কালিয়াকৈর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার প্রেক্ষিতে পুলিশ রাতেই নিরবকে গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তারকৃত নিরব উপজেলার ধোপাচালা এলাকার আব্দুল সাত্তারের ছেলে।

কালিয়াকৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনোয়ার হোসেন চৌধুরী বলেন, এ ঘটনায় কালিয়াকৈর থানায় একটি মামলা হয়েছে। মামলার এজাহার ভুক্ত আসামি নিরবকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকী আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে

নগরকন্ঠ.কম/এআর

কোন কমেন্ট নেই

উত্তর দিন