বুধবার, ২০ জানুয়ারী ২০২১, ০৭:৪৩ অপরাহ্ন

বোরো এবং আউস থেকে আমনের ক্ষতি পুষিয়ে নেওয়া যাবে

মতিনুজ্জামান মিটু : সোমবার পর্যন্ত সারা দেশের শতকরা ৫৩ ভাগ জমির আমন ধান কাটা হয়েছে। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের হিসেবে এবছর ৫৭ লাখ ৯৮ হাজার ১০০ হেক্টর জমিতে ধান চাষে কোটি ৫৫ লাখ ৯০ হাজার মেট্রিক টন চাউল উৎপাদনের লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছিলো। গত বছর ৫৮ লাখ ৮৩ হাজার হেক্টর জমি আবাদের লক্ষ্য নিয়ে আবাদ হয় ৫৯ লাখ হেক্টরে।
চলতি ২০১৯-২০ অর্থবছরে আমন আবাদ শতকরা ৫ ভাগ বাড়লেও পাঁচ দফা বন্যার কারণে ফলন ৫ লাখ থেকে ৭ লাখ টন কম হতে পারে। এবার দেশে বন্যায় ৫৪ হাজার হেক্টর জমি পুরোপুরি নষ্টসহ ১ লাখ হেক্টর জমির আমনের আবাদ বিভিন্ন লেবেলে ক্ষতিগ্রস্থ হয়।
বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. মো. শাহজাহান কবীর আরও বলেন, আমন চাউল কম হলেও দেশের খাদ্য নিরাপত্তায় কোনো সমস্যা হবে না। দেশে ৩৫ লাখ টন চাউল উদ্বৃত্ত থাকে। বন্যায় ৭ লাখ টন কম হলেও খাদ্য নিরাপত্তায় কোনো টান পড়বে না। আগামী মৌসুমে ৫০ হাজার হেক্টর জমিতে বোরো আবাদ বাড়ানো হচ্ছে। একইভাবে আউসের আবাদও বাড়ানো হবে। গত মৌসুমে দুই কোটি এক লাখ টনের লক্ষ্য নির্ধারিত থাকলেও উৎপাদন হয়েছিলে ২ কোটি ৬ লাখ টন বোরো চাঊল। আমন শব্দটির উৎপত্তি আরবি শব্দ ‘আমান’ থেকে, যার অর্থ আমানত। অর্থাৎ আমন ফসল কৃষকের কাছে একটি নিশ্চিত ফসল বা আমানত হিসেবে পরিচিত ছিলো। আবাহমান কাল থেকে এধানেই কৃষকের গোলা ভরে আসছে। যা দিয়ে কৃষক তার পরিবারের ভরণ-পোষণ, পিঠাপুলি, আতিথিয়েতাসহ সংসারের অন্যান্য খরচ মিটিয়ে থাকে।
২০১৮-১৯ আমন মৌসুমে দেশে ৫৬.২২ লাখ হেক্টর জমিতে আমন ধানের চাষ হয়। এর মধ্যে ৩.৩৯ হেক্টর বোনো, ৮.৭২ লাখ হেক্টর স্থানীয় জাতের এবং ৪৪.১১ লাখ হেক্টর জমিতে উপশী রোপা আমন চাষ হয়। যা থেকে উৎপাদন হয় ১ কোটি ৫৩ লাখ টন। চলতি বছরে ৩.১৩ লাখ হেক্টরে বোনা, ৮.৫১ হেক্টরে স্থানীয় জাতের এবং ৪৭.১৯ হেক্টর জমিতে উফশী রোপা আমন চাষ হয়। নানা সীমাবদ্ধতার পরেও প্রতি বছর আমানের উৎপাদন বাড় ছিলো। গত বছর আমনের উৎপাদন ১ কোটি ৫৫ লাখ টনে পৌঁছায়। এর পেছনে গুরুত্বপুর্ণ ভূমিকা রেখেছে নতুন নতুন উদ্ভাবিত জাত, আধুনিক ব্যবস্থাপনা ও সরকারের নীতি কৌশল। এবছর বোরো উৎপাদনের পর আউশ আমনের ওপর সরকার বিশেষ গুরুত্ব দেয়।
করোনা কারণে যেন খাদ্য সংকট না হয়, দেশে যেন দুর্ভিক্ষের মতো অবস্থা সৃষ্টি না হয়, মানুষ যেন খাদ্য কষ্টে না ভোগে, সে জন্যই এসব ব্যবস্থা নেওয়া হয়।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2017 Nagarkantha.com