শুক্রবার, ১৮ Jun ২০২১, ০৮:৪৮ পূর্বাহ্ন

বাজেটে স্বল্প আয়ের করদাতাদের বোঝা কমছে না, ধনীদের কর বাড়ছে

এবারের বাজেটে বাড়ছেনা ব্যক্তির করমুক্ত আয়সীমা। তবে বাড়ছে ধনীদের সম্পদ কর। সেই সঙ্গে কমতে পারে করপোরেট কর। কমানোর ইঙ্গিত আছে আগাম আমদানিতে আরোপিত কর ও ভ্যাট। বাজেটে দেশীয় শিল্পের বিকাশে দেয়া হবে বিশেষ ছাড়ও।  বিশ্লেষকরা বলছেন, মহামারি বিবেচনায় স্বল্পআয়ের মানুষের করের বোঝা হালকা করার দরকার।

করোনায় ক্ষতিগ্রস্থ মানুষকে একটু স্বস্তি দিতে প্রত্যাশা ছিল গতবারের মতই আয়করের বোঝা এবারও কিছুটা হালকা করা হবে। তবে সে প্রত্যাশা পুরণ হচ্ছেনা। ব্যক্তির করমুক্ত আয়ের সীমা স্থির থাকছে ৩ লাখ টাকাতেই। তবে বাড়তে পারে ধনীদের সম্পদ কর।

বিআইডিএস সিনিয়র রিসার্স ফেলো ড. নাজনীন আহমেদ বলেন, যারা কর দেয়া শুরু করেছেন সেই জায়গায় যারা আছেন তাদের মধ্যে অনেকেই কিন্তু এখন আগের অবস্থাতে নেই। অনেকেই অর্থনৈতিকভাবে দুর্বল হয়ে পড়েছেন। ব্যক্তির করমুক্ত আয়ের সীমা ৪ লাখ টাকা করা উচিত।

কর্মসংস্থান ধরে রাখাসহ ব্যবসা টিকিয়ে রাখতে এবারের বাজেটে কমছে করপোরেট করহার।  পুঁজিবাজারের তালিকাভুক্ত নয় এমন প্রতিষ্ঠানের কর আড়াই শতাংশ কমে হতে পারে ৩০ শতাংশ। এছাড়াও কমবে আমদানি পর্যায়ে আরোপিত আগাম আয়কর ও ভ্যাট হার।

বাংলাদেশ চায়না চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের মুখপাত্র আল মামুন মৃধা বলেন, ব্যবসায়িক সমাজের উপর যে চাপটা যাচ্ছে এই চাপটা কিছুটা হলেও কমবে কর্পোরেট কর কিছুটা কমানোর ফলে। যে প্রতিষ্ঠানগুলো আমরা নে পেরে বন্ধ করে দিতে বাধ্য হচ্ছিলাম সেগুলো কিছুটা হলেও সুবিধা পাবে।

বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবীর বলেন, ব্যবসায়ের অনেক ক্ষেত্রেই আমরা অনেক দেশে থেকে পিছিয়ে আছি অতিরিক্ত কর্পোরেট ট্যাক্সের কারণে। ৩২ শতাংশ কর্পোরেট ট্যাক্স আমাদের আশেপাশের কোন দেশেই নেই।

আসছে বাজেটে ৩ লাখ ৮৯ হাজার ৭৮ কোটি টাকার রাজস্ব সংগ্রহের বড় চ্যালেঞ্জ নিচ্ছে সরকার।  এনবিআরকে আহরণ করতে হবে ৩ লাখ ৩০ হাজার ৭৮ কোটি টাকা।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ড সাবেক চেয়ারম্যান বদিউর রহমান বলেন, আপনি যদি প্রথমেই মনে করেন আপনার টার্গেট পূরণ হবে না বা করবোই কম করে তাহলে তো আগানো সম্ভব না। বড় আশা বা বড় কিছু চাইলে তখন কাজও বড় হবে। সেই হিসেবেই বড় বাজেট করা হয়।

ড. নাজনীন আহমেদ বলেন, এনবিআর’কে বলতে হবে তারা কি পরিবর্তন আনছেন বা কি ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছেন। সেটা না করে যদি আমরা শুধু রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্য নিয়ে বাজেট করি তাহলে তা কতটা পূরণ হবে তার একটা প্রশ্ন কিন্তু থেকেই যায়।

বিশ্লেষকরা বলছেন, বড় ধরনের সংস্কার ছাড়া কর আহরণে এনআবিআর-এর লক্ষ্য অর্জন সম্ভব নয়।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2017 Nagarkantha.com