সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ০৬:০১ পূর্বাহ্ন

শিরোনামঃ
খালেদা জিয়া মুক্ত আছেন বলেই মুক্তভাবে চিকিৎসা নিতে পারছেন : আইনমন্ত্রী নতুন প্রজন্মের জন্য “চিরঞ্জীব মুজিব” এর মতো আরো চলচ্চিত্র নির্মাণের আহ্বান রাষ্ট্রপতির উন্নয়নশীল দেশে উত্তোরণের বিষয়ে জাতিসংঘে প্রস্তাব গ্রহণ মহান অর্জন : প্রধানমন্ত্রী ব্লু-ইকোনমির সুযোগ কাজে লাগাতে বিনিয়োগ করার জন্য পররাষ্ট্রমন্ত্রীর আহ্বান জাপান সবসময় বাংলাদেশের পাশে থাকবে : জাপানের ভাইস-মিনিস্টার বিআরটিসির সব বাসেই শিক্ষার্থীরা অর্ধেক ভাড়া সুবিধা পাবে ‘ওমিক্রন’ প্রতিরোধে জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির ৪ সুপারিশ ওমিক্রনে দক্ষিণ আফ্রিকায় মৃত্যুহার দ্বিগুণ হয়ে যাচ্ছে আর কোনো বিপদ ছাড়াই দিন শেষ করল বাংলাদেশ ‘ওমিক্রন’ নিয়ে দেশের সব প্রবেশপথে সতর্কবার্তা

ফেরি উদ্ধারে হামজার সঙ্গে প্রত্যয়

পাটুরিয়ায় ডুবে যাওয়া ফেরি ও যানবাহন উদ্ধারে দ্বিতীয় দিনের মতো অভিযান চলছে। সকাল ৮টা থেকে কাজ শুরু করেছে উদ্ধারকারী জাহাজ হামজা।
সকাল থেকে এখন পর্যন্ত একটি ট্রাক উদ্ধার করা হয়েছে। এদিকে, এখনো নারায়ণগঞ্জ থেকে পাটুরিয়ায় এসেছে উদ্ধারকারী জাহাজ প্রত্যয়।

বিআইডব্লিউটিসির নির্বাহী প্রকৌশলী শরিফুল ইসলাম জানান, বুধবার পদ্মায় ফেরিডুবির পরপরই উদ্ধার অভিযান শুরু হয়। প্রথম দিনের অভিযানে ফেরির ভেতর থেকে উদ্ধার করা হয় ৪টি ট্রাক। উদ্ধারকারী জাহাজ প্রত্যয় অভিযানে যোগ দিলে আরো দ্রুতগতিতে উদ্ধার কার্যক্রম চালানো সম্ভব হবে।

ফেরি আমানত শাহের তলদেশ ফেটে পানি ঢোকার কথা যানবাহন চালকেরা আগেই ফেরি চালককে জানিয়েছিল। কিন্তু সে কথা তিনি আমলে নেননি বলে অভিযোগ করেছেন পাটুরিয়ায় ফেরি দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্তরা। তবে এ বিষয়ে মন্তব্য না করে তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

বুধবার সকাল পৌনে ১০টার দিকে মানিকগঞ্জের পাটুরিয়ায় ৫ নম্বর ফেরিঘাটে ১৪টি পণ্যবাহী ট্রাকসহ ১৭টি যানবাহন নিয়ে উল্টে যায় রো-রো ফেরি আমানত শাহ। স্থানীয়দের সহায়তায় যাত্রীরা পাড়ে উঠতে পারলেও ডুবে যায় সবগুলো যানবাহন।

ডুবে যাওয়া যানবাহনের চালকরা বলছেন, ফেরির তলদেশ ফেটে পানি ঢোকার কথা ফেরি চালককে আগেই জানিয়েছিলেন তারা। কিন্তু তাদের কথা আমলে না নিয়েই দৌলতদিয়া ঘাট থেকে রওয়ানা হন ফেরি চালক ও তার সহকারী। পাটুরিয়া ঘাটের ব্যবস্থাপনা নিয়েও অষন্তুষ্ট ক্ষতিগ্রস্ত যানবাহন মালিকরা।

এই ঘটনায় কারো অবহেলা আছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছে বিআইডব্লিউটিসি। তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন পাওয়ার পর দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন বিআইডব্লিউটিসির চেয়ারম্যান সৈয়দ তাজুল ইসলাম।

মোট ১৯টি ফেরি দিয়ে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১টি জেলার যানবাহন ও যাত্রী পারাপার হয় পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুট দিয়ে। এর মধ্যে রো-রো ফেরি ১১টি এবং কে-টাইপ ও ইউটিলিটি মিলে রয়েছে আরো ৮টি ফেরি।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2017 Nagarkantha.com