বৃহস্পতিবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৫৫ অপরাহ্ন

শিরোনামঃ
ফিরে গেল পেন্সিলে আঁকা পরী পদত্যাগে বাধ্য করা ব্যাংকারদের চাকরিতে ফেরাতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রজ্ঞাপন বিশ্বকাপে দুজনের নতুন শুরু একদিনে আরও ২৩৪ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে করোনায় আরও ৫১ মৃত্যু, শনাক্ত হার ৫.৯৮ শতাংশ যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট এখনো ফোন না দেওয়ায় ইমরান খানের ক্ষোভ অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে হতে পারে বিসিবির নির্বাচন যুব সমাজকে ভবিষ্যতের উপযোগী করে গড়ে তুলতে প্রযুক্তিগত দক্ষতা অর্জনের বিকল্প নেই : আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জিয়া কারাগারে কত মানুষ হত্যা করেছে তা খুঁজে বের করুন: সংসদ সদস্যদের প্রতি প্রধানমন্ত্রী বিএনপি অসত্য বক্তব্য উপস্থাপনকে রেওয়াজে পরিণত করেছে : ওবায়দুল কাদের

কালের সাক্ষী হিসেবে দাঁড়িয়ে আছে কুমিল্লার জমিদার বাড়ি

কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলায় কাদুটি গ্রামে এখনো জমিদারদের ধ্বংসাবশেষ টিকে আছে। জেলার চান্দিনা উপজেলার কাদুটি গ্রামের জমিদারগণ বিরাট এলকাব্যাপী তাদের জমিদারী বিস্তার করেছিলেন।
কুমিল্লা জেলার দাউদকান্দি, দেবিদ্বার ও চান্দিনা এলাকায় ছিল কাদুটি জমিদারদের জমিদারী। এককালে যাদের ছিল জাঁক জমকপূর্ণ বিলাস বহুল জীবনযাত্রা জমিদারী প্রথা উচ্ছেদের পর থেকে তারাই পতিত হয় দৈন্যদশায়। জমিদারদের এককালের দালাল কোঠার ধ্বংসাশেষ এখনো কালের সাক্ষী হিসেবে দাঁড়িয়ে আছে। এর ইট সুরকি খসে খসে পড়ছে। খসে যাওয়া দালানটির ইটের ফাঁকে ফাঁকে এখন গজিয়েছে ডুমুর ও বট বৃক্ষ আর জমেছে শেওলার আস্তরণ।
দাউদকান্দি, দেবিদ্বার ও চান্দিনা এলাকায় জমিদারের প্রভাব প্রতিপত্তি ছিল সবচেয়ে বেশী। কাদুটি জমিদার বাড়ীর ধ্বংসাবশেষ ঘর-বাড়ি  দখলে নিয়েই জমিদারের বংশ ধরগণের কয়েক জন মানবেতর জীবন যাপন করছেন। জমিদারের বংশধর হরি রঞ্জন ঘোশ্বামী বাসসকে জানান, জমিদারী থাকাকালে আমাদের পূর্বপুরুষগণ এলাকার শিক্ষা, সংস্কৃতি, ধর্মীয় ও সামাজিক প্রতিষ্ঠান স্থাপনে এবং মানব কল্যাণে ব্যাপক ভূমিকা রেখে গেছেন। আজ আমরা পূর্ব পূরুষের ধ্বংসাশেষে শুধুই দাঁড়িয়ে আছি, সমাজের জন্য কিছুই করতে পারছি না। এটাই আমাদের সবচেয়ে বড় দুঃখ।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2017 Nagarkantha.com