বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ০৫:৪৩ পূর্বাহ্ন

বইওয়ালা চরিত্রে ইলিয়াস কাঞ্চন

আশি দশকের জনপ্রিয় চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন অসংখ্য হিট সিনেমা উপহার দিয়েছেন। তার অভিনীত ‘বেদের মেয়ে জোছনা’ ছবির ব্যবসায়িক রেকর্ড এখনো ভাঙতে পারেনি কোনো চলচ্চিত্র। তুমুল জনপ্রিয় এই নায়ক দীর্ঘ সময় ধরেই রয়েছেন সিনেমার বাইরে। ‘নিরাপদ সড়ক চাই’ আন্দোলনের মাধ্যমে জনসচেতনতামূলক কাজেই বেশি ব্যস্ত তিনি। তবে খুব ভালো গল্প পেলে মাঝে মাঝেই হাজির হন পর্দায়। সেটা সিনেমা হোক বা নাটক।

ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, ‘এখন বয়স হয়েছে। আগের মতো সব ধরনের চরিত্রে আর মানায় না। কিন্তু আমাদের উপযোগী করে গল্প এখন আর কেউ লেখেন না। ফলে মনের মতো খুব কম গল্পই পাই। আর এই বয়সে এসে সব ধরনের যেমন তেমন কাজ করাও সম্ভব নয়। একটু বেছে বেছেই কাজ করতে হয়। এজন্য খুব কম কাজ করি।’

তিনি আরও বলেন, ‘যখন দেখি ভারতে আমার থেকে বয়সে অনেক বড় হয়েও অমিতাভ বচ্চন, রজনীকান্ত, মিঠুন চক্রবর্তী দারুণ সব কাজ করছেন এখনো, তখন সত্যি মন খারাপ হয়। তাই তো যখনই দেখি কোনো গল্পে নিজেকে প্রকাশের ন্যূনতম সুযোগ আছে সেই গল্পটিতে কাজ করি।’ সম্প্রতি নতুন একটি নাটকে কাজ করলেন তিনি। রাইসুল তমালের পরিচালনায় ‘বইওয়ালা’ নাটকে তাকে দেখা যাবে একজন বইয়ের ফেরিওয়ালা হিসেবে। নাটকটি লিখেছেন কায়রুল বাশার নির্ঝর। ‘নাটকটি নিয়ে ‘বইওয়ালা’ গল্পটি পাওয়ার পর মনে হয়েছিল চরিত্রটি অসাধারণ। এ ধরনের চরিত্রের প্রতি এখনো আমার অনেক লোভ আছে। কাজটি করতে গিয়েও বেশ ভালো লেগেছে। যিনি পড়ালেখা করতে পারেননি। কিন্তু বই নিয়ে তার সবচেয়ে বেশি আগ্রহ। বই নিয়ে তাকে দ্বারে দ্বারে ঘুরতে দেখা যাবে। এর মধ্যে রোমান্টিক কিছু মুহূর্ত গল্পে অন্য মাত্রা যোগ করবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘এর আগে সঞ্জয় সমদ্দারের পরিচালনায় বঙ্গ ববের ‘মরণোত্তম’ নাটকে কাজ করেছিলাম। খুব ভালো একটা কাজ হয়েছিল। প্রচুর সাড়াও পেয়েছি। এ ধরনের কাজ পেলে আরও করতে চাই।’

তার অভিনীত সর্বশেষ সিনেমা মুক্তি পেয়েছিল ২০১৮ সালে। এরপর নাটকে দেখা গেলেও সিনেমায় অনুপস্থিত ছিলেন তিনি। তবে শিগগিরই তাকে আবারও সিনেমার পর্দায় দেখা যাবে। এরই মধ্যে শুটিং শেষ করেছেন তিনি। ছবির নাম ‘ফিরে দেখা’। পরিচালনা করছেন চিত্রনায়িকা রোজিনা। সরকারি অনুদানে এটি নির্মিত হচ্ছে। কাঞ্চন বলেন, ‘আমার সহশিল্পী রোজিনার পরিচালনায় প্রথম ছবি ‘ফিরে দেখা’য় কাজ করলাম। খুবই ভালো অভিজ্ঞতা হয়েছে। ওর প্রথম ছবির জন্য শুভকামনা থাকবে।’

এ ছাড়া অনন্ত জলিলের নতুন সিনেমা ‘নেত্রী দ্য লিডার’ সিনেমায় একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করবেন তিনি। সিনেমায় আগের মতো চরিত্রাভিনেতাদের নিয়ে আর তেমন ভাবা হচ্ছে না জানিয়ে কাঞ্চন বলেন, ‘আগে যখন রাজ্জাক ভাই, আলমগীর ভাই বা ফারুক ভাইয়েরা নায়কের পার্ট ছেড়ে চরিত্রাভিনেতা হিসেবে কাজ শুরু করলেন তখন তাদের জন্য প্রচুর ভালো ভালো গল্প ভাবা হতো। চরিত্রাভিনেতা হিসেবে নিজেদের সেভাবে মেলে ধরার মতো গল্প পেতেন কিন্তু এখন সব বদলে গেছে। এখন নায়ক-নায়িকার বাইরে করার মতো তেমন চরিত্র থাকে না। এ কারণে সিনেমায় আগের মতো বৈচিত্র্য নেই।’ ১৯৫৬ সালে জন্মগ্রহণ করেন ইলিয়াস কাঞ্চন। ১৯৭৭ সালে ‘বসুন্ধরা’র মাধ্যমে চলচ্চিত্রে অভিনয় শুরু করেন। এ যাবত আনুমানিক ৪০০’র মতো সিনেমায় কাজ করেছেন। তার ক্যারিয়ারের স্বর্ণযুগ ছিল ১৯৮৮ থেকে ১৯৯৭ পর্যন্ত। এরপর অশ্লীলতার কারণে ধীরে ধীরে অভিনয় করা কমিয়ে দেন। ১৯৮৯ সালে তার ক্যারিয়ারের সেরা চলচ্চিত্র ‘বেদের মেয়ে জোছনা’ মুক্তি পায়। এতে তার বিপরীতে অভিনয় করেন অঞ্জু ঘোষ। এরপর তিনি অসংখ্য দর্শকপ্রিয় চলচ্চিত্র উপহার দেন। যার মধ্যে আঁখি মিলন, শঙ্খমালা, অচেনা, রাধা কৃষ্ণ, ত্যাগ, সিপাহী, বেনাম বাদশা, আদরের সন্তান, ভেজাচোখ, রক্তের অধিকার, চরম আঘাত, স্বজন, ভাংচুর উল্লেখযোগ্য।

অভিনয়ের স্বীকৃতিস্বরূপ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারসহ পেয়েছেন নানা পুরস্কার। সমাজসেবায় অবদানের জন্য বাংলাদেশ সরকার ২০১৭ সালে তাকে দেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা একুশে পদকে ভূষিত করে।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2017 Nagarkantha.com