সোমবার, ১৬ মে ২০২২, ০৯:৫১ অপরাহ্ন

ফেনীতে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের কনসার্টে জেমস

ছোট-বড় নৌকা আর দৃষ্টিনন্দন সাজে সেজেছে পুরো মাঠ। ভবনের দেয়াল, সড়ক ও আশপাশের গাছগাছালিতে বর্ণিল আলোতে ছেয়ে গেছে। লাল-সবুজসহ নানা রঙের বাতির আলোয় ঝলমল করছে ফেনী সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়, ফেনী সরকারি কলেজ, ফেনী সরকারি পাইলট প্রাথমিক বিদ্যালয় ও পৌরসভা ভবন। সোমবার ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে জমকালো এ আয়োজন করছে ফেনী পৌর আওয়ামী লীগ।

ফেনী সরকারি কলেজের ভবনে বাহারি রঙের আলোয় তৈরি  জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আর জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারীর এলইডি ছবি সৌন্দর্যে বাড়তি মাত্রা যোগ করেছে। গত দুই দিন ধরে সন্ধ্যার পর উৎসবের আমেজে পরিবার-পরিজন নিয়ে দেখতে আসছেন অনেকে।

১০ জানুয়ারি সন্ধ্যার পর থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত গান-নাচে মেতে উঠবে দর্শকরা। গানের তালে-সুরের ছন্দে মঞ্চ মাতাবেন জনপ্রিয় সংগীত তারকা রকস্টার গুরু নগরবাউলখ্যাত জেমস। নগরবাউল ছাড়া সঙ্গে আরো থাকছেন হাসান (আর্ক), ফেরদৌস-পূর্ণিমা, ওমর সানী-মৌসুমী, ব্যাচেলর পয়েন্টের কাবিলা, শুভ, পাশা ও হাবু। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী।

আয়োজকরা জানান, খোলা আকাশের নিচে ফেনী সরকারি কলেজের ভবনের সামনেই স্থাপন করা হয়েছে ৩০ আর ৪০ ফুট বিশিষ্ট মঞ্চ। প্রতিদিনই পৌরসভার মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম স্বপন মিয়াজী আয়োজনের তদারকি করছেন। তিনি জানান, মুজিববর্ষ, স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী, বিজয়ের সুবর্ণ জয়ন্তী, নতুন বছর আর বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের দিনে এ কনসার্ট বাড়তি মাত্রা যোগ করবে।

Please Share This Post in Your Social Media

বড় পর্দায় ২০ মে মুক্তি পেতে চলেছে বলিউডের তরুণ প্রজন্মের জনপ্রিয় নায়িকা কিয়ারা আদবানি অভিনীত ছবি ‘ভুল ভুলাইয়া ২’। আনিস বাজমি পরিচালিত এই ছবিতে তার সঙ্গে আছেন তরুণদের হার্টথ্রব নায়ক কার্তিক আরিয়ান। আরও রয়েছেন টাবু, রাজপাল যাদব, সঞ্জয় মিশ্রসহ দক্ষ অভিনয়শিল্পী। এর আগে ‘ভুল ভুলাইয়া’ ছবিতে দেখা গেছে অক্ষয় কুমার, বিদ্যা বালান, আমিশা প্যাটেল ছাড়া অনেককে। সংগত কারণে ‘ভুল ভুলাইয়া ২’ ছবির ঘোষণার পর থেকে কিয়ারার সঙ্গে বিদ্যার ক্রমাগত তুলনা টানা হচ্ছে। এ প্রসঙ্গে কিয়ারার মন্তব্য, ‘ভুল ভুলাইয়া’ জনপ্রিয় ছবি ছিল। আর ‘ভুল ভুলাইয়া ২’ এর ফ্র্যাঞ্চাইজি। তাই স্বাভাবিক নিয়মে তুলনা উঠে আসবে। সব ফ্র্যাঞ্চাইজির ক্ষেত্রে এটা হয়। তবে আপনারা শুধু এই ছবির ট্রেলার দেখেছেন। তাই এখন পর্যন্ত জানেন না যে কে আসল ‘মঞ্জুলিকা’। এই ছবির সব চরিত্রে আলাদা শেডস আর ব্যক্তিত্ব লুকিয়ে আছে। আমার চরিত্রের ক্ষেত্রেও তাই। ‘ভুল ভুলাইয়া ২’ দেখার পর এই তুলনা টানা বন্ধ হবে বলে মনে হয়।’ কিয়ারাকে শেষ দেখা গেছে আমাজন প্রাইম ভিডিওর ‘শেরশাহ’ ছবিতে। এই ছবিতে ‘ডিম্পল চিমা’র চরিত্রে সবার নজর কেড়েছেন তিনি। তার অভিনীত চরিত্রটি ছোট হলেও জোরদার ছিল। অনেকে মনে করেন ‘কবির সিং’ ছবিটি কিয়ারার জীবনের মোড় অনেকটা ঘুরিয়ে দিয়েছে। তবে এ ব্যাপারে মোটেও একমত নন তিনি। এই বলিউড নায়িকার মতে, “আসলে ‘কবির সিং’ ছবি থেকে আমি প্রচুর ভালোবাসা পেয়েছি। অনেকে আমাকে বাস্তবে ‘প্রীতি’ বলে ভাবতে শুরু করেছিল। তবে আমি মনে করি যে আমার প্রতিটা ছবি-ই আমার জীবনের ‘টার্নিং পয়েন্ট’। ‘ফাগলি’ আমার ক্যারিয়ারের প্রথম টার্নিং পয়েন্ট ছিল। কারণ, এই ছবির হাত ধরে আমি ইন্ডাস্ট্রিতে পা রেখেছিলাম। আমি মনে করেছিলাম যে আমি যত কাজ করব, তত বেশি কাজ পাব। ‘লাস্ট স্টোরিজ’-এর মাধ্যমে আমি চিত্র সমালোচকদের নজরে পড়েছিলাম। সবার প্রশংসা পেয়েছিলাম। তখন বোঝার মতো বোধশক্তি ছিল না যে করণ জোহরের মতো নির্মাতার সঙ্গে কাজ করেছি। এখন পেছনের দিকে তাকালে সত্যি গর্ব অনুভব করি। কারণ, ‘লাস্ট স্টোরিজ’-এর মতো সাহসী কনটেন্টে কাজ করেছি। তবে নিশ্চয় ‘কবির সিং’ ছবির পর আমার ক্যারিয়ারের খেলাটাই যেন বদলে গেছে। ‘গুড নিউজ’, ‘শেরশাহ’ এসব ছবি আমাকে এক উচ্চতায় পৌঁছে দিয়েছে।”

© All rights reserved © 2017 Nagarkantha.com