সোমবার, ১৬ মে ২০২২, ০৮:৪৪ অপরাহ্ন

জাদুঘরে সংরক্ষিত হলো রাজ্জাকের ব্যবহৃত জিনিসপত্র

ঢাকাই সিনেমার কিংবদন্তি অভিনেতা ছিলেন আব্দুর রাজ্জাক। অভিনয়ের জন্য পেয়েছেন নায়করাজ উপাধি। শুধু কি উপাধি, অভিনয়ের জন্যই বাঙালির হৃদয়ে দাগ কেটে রয়েছেন আজও। ৮০তম জন্মদিনে এই নায়কের ব্যবহৃত জিনিসপত্র হস্তান্তর করা হয়েছে বাংলাদেশ ফিল্ম আর্কাইভের মিউজিয়ামে।

বাংলাদেশ ফিল্ম আর্কাইভের মহাপরিচালক মো. নিজামূল কবীরের উপস্থিতিতে রোববার রাজ-পরিবারের পক্ষে ছেলে অভিনেতা সম্রাট রাজ্জাকের ব্যবহৃত ব্লেজার, চশমা, পাঞ্জাবি ও ক্যাপ বাংলাদেশ ফিল্ম আর্কাইভের মিউজিয়ামের জন্য হস্তান্তর করেন।

সম্রাট জানিয়েছেন, ‘‘ করোনার কারণে পারিবারিকভাবে কোন আয়োজন করা হচ্ছে না এবার। তবে পরিবারের পক্ষ থেকে ফিল্ম আর্কাইভের মিউজিয়ামে রাখার জন্য আব্বুর ব্যবহৃত কিছু সামগ্রী দিয়েছি। আর্কাইভের এই উদ্যোগটি বেশ প্রশংসনীয়।’’

রাজ্জাক ১৯৪২ সালের ২৩ জানুয়ারি পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ কলকাতার টালিগঞ্জে জন্মগ্রহণ করেন। জন্মস্থান কলকাতায় সপ্তম শ্রেণিতে অধ্যয়নরত অবস্থায় মঞ্চ নাটকের মাধ্যমে অভিনয়জীবন শুরু করেন এবং ১৯৬৬ সালে ‘১৩ নম্বর ফেকু ওস্তাগার লেন’ চলচ্চিত্রে একটি ছোট চরিত্রে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশি চলচ্চিত্রে তার অভিষেক ঘটে। এর পরের ইতিহাস সবার জানা।

Please Share This Post in Your Social Media

বড় পর্দায় ২০ মে মুক্তি পেতে চলেছে বলিউডের তরুণ প্রজন্মের জনপ্রিয় নায়িকা কিয়ারা আদবানি অভিনীত ছবি ‘ভুল ভুলাইয়া ২’। আনিস বাজমি পরিচালিত এই ছবিতে তার সঙ্গে আছেন তরুণদের হার্টথ্রব নায়ক কার্তিক আরিয়ান। আরও রয়েছেন টাবু, রাজপাল যাদব, সঞ্জয় মিশ্রসহ দক্ষ অভিনয়শিল্পী। এর আগে ‘ভুল ভুলাইয়া’ ছবিতে দেখা গেছে অক্ষয় কুমার, বিদ্যা বালান, আমিশা প্যাটেল ছাড়া অনেককে। সংগত কারণে ‘ভুল ভুলাইয়া ২’ ছবির ঘোষণার পর থেকে কিয়ারার সঙ্গে বিদ্যার ক্রমাগত তুলনা টানা হচ্ছে। এ প্রসঙ্গে কিয়ারার মন্তব্য, ‘ভুল ভুলাইয়া’ জনপ্রিয় ছবি ছিল। আর ‘ভুল ভুলাইয়া ২’ এর ফ্র্যাঞ্চাইজি। তাই স্বাভাবিক নিয়মে তুলনা উঠে আসবে। সব ফ্র্যাঞ্চাইজির ক্ষেত্রে এটা হয়। তবে আপনারা শুধু এই ছবির ট্রেলার দেখেছেন। তাই এখন পর্যন্ত জানেন না যে কে আসল ‘মঞ্জুলিকা’। এই ছবির সব চরিত্রে আলাদা শেডস আর ব্যক্তিত্ব লুকিয়ে আছে। আমার চরিত্রের ক্ষেত্রেও তাই। ‘ভুল ভুলাইয়া ২’ দেখার পর এই তুলনা টানা বন্ধ হবে বলে মনে হয়।’ কিয়ারাকে শেষ দেখা গেছে আমাজন প্রাইম ভিডিওর ‘শেরশাহ’ ছবিতে। এই ছবিতে ‘ডিম্পল চিমা’র চরিত্রে সবার নজর কেড়েছেন তিনি। তার অভিনীত চরিত্রটি ছোট হলেও জোরদার ছিল। অনেকে মনে করেন ‘কবির সিং’ ছবিটি কিয়ারার জীবনের মোড় অনেকটা ঘুরিয়ে দিয়েছে। তবে এ ব্যাপারে মোটেও একমত নন তিনি। এই বলিউড নায়িকার মতে, “আসলে ‘কবির সিং’ ছবি থেকে আমি প্রচুর ভালোবাসা পেয়েছি। অনেকে আমাকে বাস্তবে ‘প্রীতি’ বলে ভাবতে শুরু করেছিল। তবে আমি মনে করি যে আমার প্রতিটা ছবি-ই আমার জীবনের ‘টার্নিং পয়েন্ট’। ‘ফাগলি’ আমার ক্যারিয়ারের প্রথম টার্নিং পয়েন্ট ছিল। কারণ, এই ছবির হাত ধরে আমি ইন্ডাস্ট্রিতে পা রেখেছিলাম। আমি মনে করেছিলাম যে আমি যত কাজ করব, তত বেশি কাজ পাব। ‘লাস্ট স্টোরিজ’-এর মাধ্যমে আমি চিত্র সমালোচকদের নজরে পড়েছিলাম। সবার প্রশংসা পেয়েছিলাম। তখন বোঝার মতো বোধশক্তি ছিল না যে করণ জোহরের মতো নির্মাতার সঙ্গে কাজ করেছি। এখন পেছনের দিকে তাকালে সত্যি গর্ব অনুভব করি। কারণ, ‘লাস্ট স্টোরিজ’-এর মতো সাহসী কনটেন্টে কাজ করেছি। তবে নিশ্চয় ‘কবির সিং’ ছবির পর আমার ক্যারিয়ারের খেলাটাই যেন বদলে গেছে। ‘গুড নিউজ’, ‘শেরশাহ’ এসব ছবি আমাকে এক উচ্চতায় পৌঁছে দিয়েছে।”

© All rights reserved © 2017 Nagarkantha.com