নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ইসলামী আন্দোলনের সমাবেশ

নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ইসলামী আন্দোলনের সমাবেশ

0

নিজস্ব প্রতিবেদক, নগরকন্ঠ.কম : সরকারি নির্দেশনা অমান‌্য করেই বায়তুল মোকাররমে সমাবেশ করতে দেখা গেছে ইসলামী আন্দোলনকে। এ সময় দলের নেতাকর্মীরা সামাজিক দূরত্ব তো বজায় রাখেনইনি, পরন্তু স্বাস্থ্যবিধিও অমান্য করেছেন। শুক্রবার (১৬ অক্টোবর) জুমার নামাজের পর জাতীয় সমজিদ বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেটে এই কর্মসূচি পালন করে দলের ঢাকা মহানগর শাখা।

সমাবেশে দেখা গেছে, মসজিদের সিঁড়ির ওপর দাঁড়িয়ে বক্তব্য রাখছেন দলের নেতারা। এ সময় তারা মসজিদের উত্তরগেটের সবক’টি ফটক দখল করে রাখেন। এতে জুমার নামাজ শেষে মুসল্লিরা আটকা পড়েন। বাধ্য হয়ে পূর্ব গেট দিয়ে মুসল্লিদের বের হতে হয়েছে। বিক্ষোভ-সমাবেশের একপর্যায়ে নেতাকর্মীরা দক্ষিণ গেটের বাইরে যান চলাচল বন্ধ করে দিয়ে পল্টন মোড় থেকে দৈনিক বাংলা পর্যন্ত রাস্তাও দখল করে রাখেন। সমাবেশ শেষে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে পল্টন ঘুরে মিছিল শেষ করেন তারা।

এ সময় নারী নির্যাতন বন্ধের দাবিসহ বিভিন্ন ইস্যুতে আগামী ২৩ অক্টোবর রাজধানী ঢাকায় বিক্ষোভ সমাবেশ ও গণমিছিল কর্মসূচি ঘোষণা করেছেন দলের নায়েবে আমির মুফতি ফয়জুল করীম।

নারী নির্যাতন বন্ধে ইসলামী আইন বাস্তবায়নের দাবি জানিয়ে বিক্ষোভ সমাবেশে মুফতি ফয়জুল করীম বলেন, ‘ধর্ষণের বিরুদ্ধে আন্দোলন চলছে, আইন সংশোধনও হয়েছে। কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে, ধর্ষণ কি বন্ধ হচ্ছে? কেন বন্ধ হচ্ছে না, তার কারণ খুঁজতে হবে।’

সরকা‌রি নিষধাজ্ঞা ও স্বাস্থ‌্যবিধি অমান‌্য করে সমাবেশ করার বিষয়ে জানতে চাইলে ইসলামী আন্দোল‌নের কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক আহমদ আব্দুল কাইয়ুম বলেন, ‘আমরা পু‌লি‌শের অনুম‌তি নি‌য়ে কর্মসূ‌চি পালন করেছি। নেতাকর্মীর সমাগম এ‌ত বে‌শি স্বাস্থ‌্যবি‌ধি রক্ষা করা কিছুটা ক‌ঠিন হ‌য়ে পড়ে। তবে ভ‌বিষ‌্যতে এ বিষয়ে সতর্ক থাকবো।’

এই বিষয়ে জানতে চাইলে শুক্রবার (১৬ অক্টোবর) রাতে পল্টন থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবু বক্কর সিদ্দিকী বলেন, ‘ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনসহ আরও তিনটি সংগঠন সমাবেশ করেছে। তাদের পূর্বানুমতি ছিল। তবে অপ্রীতিকর ঘটনারোধে মসজিদ সংলগ্ন ও আশপাশের এলাকায় বিপুল পরিমাণ পুলিশ মোতায়েন করা হয়। ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে ছিলেন।’

দলের ঢাকা মহানগর দক্ষিণ সভাপতি মুহাম্মদ ইমতিয়াজ আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর উত্তর সভাপতি সভাপতি মাওলানা শেখ ফজলে বারী মাসউদ, মাওলানা আহমদ আবদুল কাইয়ূম, কেএম আতিকুর রহমান, এম. হাছিবুল ইসলাম, মাওলানা এবিএম জাকারিয়া, মাওলানা আরিফুল ইসলাম, ঢাকা জেলা সেক্রেটারি শাহাদাত হোসাইন, হুমায়ুন কবির, মুফতি ফরিদুল ইসলাম, মাওলানা এইচএম সাইফুল ইসলাম, মাওলানা বাছির মাহমুদ প্রমুখ।

নগরকন্ঠ.কম/এআর

কোন কমেন্ট নেই

উত্তর দিন