মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ০৭:৩৩ অপরাহ্ন

শিরোনামঃ

তীব্র শৈত্য প্রবাহের কবলে কুড়িগ্রাম

এদিকে টানা ৬ দিন মৃদু শৈত্য প্রবাহ প্রবাহিত হওয়ার পর হঠাৎ তিব্র শৈত্য প্রবাহ শুরু হওয়ায় কুড়িগ্রামের জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হচ্ছে না তারা। জনশুন্য হয়ে পড়েছে রাস্তা ঘাট। সন্ধ্যার পর বন্ধ হয়ে যাচ্ছে দোকান পাট। শীতের কারণে দূর্ভোগে পড়েছে দিনমুজুর, ছিন্নমূল ও খেটে খাওয়া মানুষ।

কুড়িগ্রামের ধরলা পাড়ের কৃষক চান মিয়া (৫০) জানান, ঠাণ্ডার মাত্রা বেড়ে যাওয়ায় আমরা বিপাকে পড়েছি। বোরো চাষের ভরা মৌসুম চললেও কনকনে ঠাণ্ডায় ঠিক মতো মাঠে কাজ করতে না পারায় ব্যাহত হচ্ছে বোরো আবাদ। ফলে আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে পড়ছি আমরা।

প্রচণ্ড ঠাণ্ডা এবং ঘন কুয়াশায় জবুথুবু হয়ে পড়েছে কুড়িগ্রামের জনজীবন। দিনের অধিকাংশ সময় কুয়াশার চাদরে ঢাকা থাকে চারদিক। প্রচণ্ড ঠাণ্ডার সাথে পাল্লা দিয়ে সারারাত বৃষ্টির মতো ঝরতে থাকে শিশির। ঘন কুয়াশার কারণে দিনের বেলাতেও হেড লাইট জ্বালিয়ে যানবাহনকে চলাচল করতে হয় এ জেলায়। রাতভর শীতের সাথে যুদ্ধ করে সকালে কাজে যোগ দেয়া শ্রমজীবী মানুষের দূর্ভোগ চরমে উঠেছে। এছাড়া দূর্ভোগে পড়েছে দিনমুজুর, ছিন্নমূল ও চরাঞ্চলের মানুষ। শীতজনিত নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছে শিশু ও বৃদ্ধরা।

কুড়িগ্রামের রাজারহাট আবহাওয়া ও কৃষি পর্যবেক্ষণাগারের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুবল চন্দ্র সরকার জানান, হঠাৎ করেই কুড়িগ্রামে তিব্র শৈত্য প্রবাহ শুরু হয়েছে। আজ সকাল ৬টায় কুড়িগ্রামে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৫ দশমিক ৫ ডিগ্রী সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়। যা এ মৌসুমেরও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2017 Nagarkantha.com